বুফন ফিরছেন আর্জেন্টিনা-ইংল্যান্ডের বিপক্ষে!

প্রকাশিত

ক্রীড়া ডেস্ক: মিলানে সুইডেনের সাথে গোলশূণ্য ড্রয়ের পর জিয়ানলুইজি বুফনের কান্নাভেজা মুখের ছবি এখনও ভুলতে পারেনি ইতালি সমর্থকরা। কিভাবে ভুলবে সেই মুহূর্তের কথা?

১৯৫৮ সালের পর ফের ২০১৮ ফুটবল বিশ্বকাপে নেই ইতালি! শুধু বুফন কেন সেদিন তো কেঁদেছিল পুরো ফুটবল বিশ্বও। ১৯৩৪, ১৯৩৮, ১৯৮২ ও ২০০৬ সালের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইতালি ২০১৮-র রাশিয়া বিশ্বকাপে না থাকায় টুর্নামেন্ট যে অনেকটাই ফিকে, তা নিঃসন্দেহে বলা যায়।

আজ্জুরিদের ফুটবল বিশ্বকাপে উঠাতে ব্যর্থ হওয়ায় আন্তর্জাতিক ফুটবলকে সেদিনই বিদায় বলে দিয়েছিলেন বুফন। নিজের বিদায় ঘোষণার সময় কান্নাভেজা মুখ লুকাতে পারেননি বুফন। ৩৯ বছরের এই গোলরক্ষক আশাবাদী ছিলেন ইতালি ঘুরে দাঁড়াবে।

দলকে সঠিক পথে নিয়ে আসার দায়িত্বটা নিজ কাঁধেই তুলে নিলেন বুফন। জানিয়েছেন, দলের প্রয়োজনে অবসর ভেঙে ফিরতে প্রস্তুত তিনি। মার্চে ইংল্যান্ড-আর্জেন্টিনার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলবে ইতালি। ওই দুই ম্যাচ খেলার ইচ্ছা পোষণ করেছেন বুফন। যদি দলের প্রয়োজন হয় অবশ্যই সাড়া দিবেন তিনি।

‘এই মুহূর্তে জাতীয় দলের জন্য আমি আমার দায়িত্ব অনুভব করছি। সামনেই দুটি প্রীতি ম্যাচ রয়েছে। আমি পরিবার নিয়ে বেড়াতে যেতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু জাতীয় দলে যদি আমাকে প্রয়োজন হয় অবশ্যই আমি ফিরে আসব। আমি আমার দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে পারি না। দায়িত্ব এবং আনুগত্য থেকেই কাজটি করতে ইচ্ছুক। ভবিষ্যতে কি হবে সেটা ভাবতে চাই না। আর্জেন্টিনা ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যারা অভিজ্ঞ তাদের দলে প্রয়োজন।’ ইতালি১ কে বলেছেন বুফন।

ইতালির সর্বকালের সেরা ফুটবলার বুফন জাতীয় দলকে দুহাত ভরে সাফল্য দিয়েছেন। ১৭৫ ম্যাচ খেলেছেন ইতালির হয়ে। ২০০৬ বিশ্বকাপে ফ্রান্সের সঙ্গে পেনাল্টি শুটআউটে দলকে দিয়েছিলেন শিরোপা।  ২০১১ সালে অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর ২০১২ সালে দলকে নিয়ে গিয়েছিলেন ইউরোর ফাইনালে।

ইতালি ২৩ মার্চ ম্যানচেষ্টারে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনার বিপক্ষে খেলবে। চারদিন পর ওয়েম্বলিতে ইংল্যান্ডের আতিথেয়তা নিবে তারা। চিরচেনা সমুদ্রসেচা নীল জার্সিতে বুফনকে আবারও দেখার অপেক্ষায় হাজারো ফুটবলপ্রেমি।