বেগমগঞ্জে কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বে মসজিদের সামনে পিস্তল নিয়ে মাস্তানি,অস্ত্র-গুলিসহ আটক ১

প্রকাশিত
নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে মসজিদের কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে অবৈধ পিস্তল দিয়ে মসজিদের সামনে মাস্তানী করতে গেলে মুসল্লীদের সগযোগিতায় গ্রাম পুলিশ অস্ত্রধারীদের একটি পিস্তল-এক রাউন্ড গুলি আটক করে।এ সময় মুসল্লীদের ধাওয়া গেয়ে অস্ত্রধারীরা অস্ত্র রেখে পালিয়ে যায়।শনিবার (১ মে) দুপুর ১টায় পুলিশ এ ঘটনায় আটককৃত আসামি ঘটনার নিদের্শ দাতাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে প্রেরণ করে। গ্রেপ্তারকৃত নুর মোহাম্মদ (৫৫) উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত হাজী রুহুল আমিনের ছেলে।এর আগে, শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার  আালাইয়াপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মোশাকপুর গ্রামের জামে মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানায়, মোশাকপুর গ্রামের জামে মসজিদের কমিটি নিয়ে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে মসজিদের সেক্রেটারি হাজী নুর মোহাম্মদের লোকজন অস্ত্রশস্ত্রসহ প্রতিপক্ষের লোকজনকে আক্রমণের চেষ্টা চালায়। এ সময় তাহার ছেলেও ভাতিজারা অস্ত্রসহ মসজিদের সামনে মাস্তানি করতে থাকলে উপস্থিত মুসল্লিদের সহায়তায় গ্রাম পুলিশ আ. রহিম অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী রশীদকে ঝাপটাইয়া ধরে এবং একটি নাইন এম.এম বিদেশী পিস্তল ও এক রাউন্ড গুলি সহ আটক করে। এক পর্যায়ে মুসল্লীদের ধাওয়া খেয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি পিস্তল ও এক রাউন্ড গুলি জব্দ করে এবং নির্দেশদাতা আাসামি হাজী নুর মোহাম্মকে (৫৫), আটক করে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আসামি হাজী নুর হোসেন (৬০), মো. রশীদ (১৮), ও লাল চানের (১৮), বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ থানায় অস্ত্র আইনে মামলা হয়েছে।
বেগমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ কামরুজ্জামান সিকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃত আসামিকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে।