বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার এক যুবতী

প্রকাশিত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আত্মীয়র বাড়িতে বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক যুবতী।

কলকাতার তারাতলা এলাকার স্থানীয় পোর্ট ট্রাস্টের একটি পরিত্যক্ত কোয়ার্টারে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ওই যুবতীর অভিযোগের ভিত্তিতে ছয় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আটককৃতদের মধ্যে তিনজন নাবালক।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ২৭ বছরের ওই যুবতী বাগুইআটির বাসিন্দা। পোর্ট ট্রাস্টের কোয়ার্টারে নিজের আত্মীয়র বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন তিনি। শুক্রবার বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ। স্থানীয় এক দোকানে মাংস কিনতে গিয়েছিলেন ওই যুবতী। সেই দোকানেই কাজ করত এক অভিযুক্ত। নিজের সঙ্গে ওই যুবতীকে কোয়ার্টার এলাকারই এক পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানেই সকলে মিলে যুবতীকে ধর্ষণ করে। আর এই নারকীয় ঘটনার ছবি ও ভিডিও তুলে রাখা হয়। পরে যুবতীকে হুমকি দেওয়া হয়, এ বিষয়ে যেন তিনি কাউকে কিছু না বলেন। যদি বলেন, তাহলে ছবি ও ভিডিওগুলি প্রকাশ্যে ছড়িয়ে দেওয়া হবে। কিন্তু অত্যাচার মেনে নেননি ওই যুবতী। আত্মীয়র বাড়ি পৌঁছে পুরো বিষয়টি জানান। তারাতলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

যুবতীর অভিযোগের ভিত্তিতে ওই ছয় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে তিনজন নাবালক। একজনের বয়স পনেরো। সে সি.পি.টি. কলোনি মার্কেট এলাকার বাসিন্দা। দুই নাবালকের বয়স ১৭। তারা যথাক্রমে মহেশতলা ও পোর্ট ট্রাস্টের মজদুর এলাকার বাসিন্দা। বাকি তিন অভিযুক্তের নাম সুমিত সিং (২৩), অভিষেক কুমার(১৮) ও প্রদীপ কুমার চৌধুরী(১৯)। ছয় অভিযুক্তের বিরুদ্ধেই ৩৭৬ডি ধারায় গণধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়েছে।