বেমানান কান্ডে বিপাকে নেইমার জুনিয়র!

প্রকাশিত

ক্রিয়া প্রতিবেদক ঃ নিজের ইমেজের সাথে বেমানান কান্ডে বিপাকে পড়েছেন নেইমার জুনিয়র!

মহাশূন্যে বিলীন হয়ে গিয়েছেন ‘আ ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম’-এর স্রষ্ঠা বিখ্যাত বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং। বিজ্ঞানের জগতে নক্ষত্রপতন ঘটেছে। তাকে হারিয়ে শোকস্তব্ধ গোটা বিশ্ব। নেটদুনিয়াতেও তাকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন সারা পৃথিবীর নেটিজেনরা। কিন্তু হকিংকে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে এ কী করলেন নেইমার জুনিয়র! তার কাণ্ডজ্ঞানহীন পোস্ট দেখে হতবাক সকলেই।

দুনিয়ার সবচেয়ে দামী ফুটবলার তিনি। তাকে নিয়ে চর্চা হয় প্রতিনিয়ত। অথচ তিনি যে হকিংকে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে এমন অদ্ভুত পোস্ট করে বসবেন, তা কেউ কল্পনাও করেননি। কী পোস্ট করেছেন ব্রাজিলের পোস্টার বয়? ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি হুইলচেয়ারে বসে রয়েছেন নেইমার। মুখে হাসি। আর ছবির নিচে হকিংয়েরই একটি অনুপ্রেরণামূলক উক্তি।

‘জীবনের যে কোনও পরিস্থিতিতে আত্মবিশ্বাসী থাকতে হবে। তবেই নিজেকে যেখানে দেখতে চাও, সেখানে পৌঁছে যেতে পারবে।’ এমন উক্তির উল্লেখ করেই যেন প্রয়াত বিখ্যাত বিজ্ঞানীকে শ্রদ্ধা জানাতে চেয়েছেন তিনি। কিন্তু যে ছবিটি পোস্ট করেছেন, তাতে শ্রদ্ধা চেয়ের বেশি অসম্মানই করা হয়েছে তাকে। হকিংয়ের প্রতিবন্ধকতা নিয়ে মশকরা করেছেন নেইমার। আর তাই প্যারিস সাঁ জাঁ-র ফুটবলারের উপর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন নেটিজেনরা।

অত্যন্ত অল্প বয়সেই বিরল ‘মোটর নিউরন’ রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন হকিং। যার জন্য চলতে-ফিরতে এমনকী কথা বলার ক্ষমতাও হারিয়েছিলেন তিনি। যন্ত্রের দ্বারাই নিয়ন্ত্রিত হত তার জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত। আর নিজে হুইলচেয়ারে বসে ছবি পোস্ট করে হকিংকে অত্যন্ত অসম্মান করেছেন নেইমার বলে মনে করছেন সকলে। পায়ে চোটের কারণেই আপাতত মাঠের বাইরে নেইমার। হুইলচেয়ারে বসেই তার দিন কাটছে। প্রায় তিনমাস এভাবেই চলবে। কিন্তু তার সাথে হকিংকে জড়িয়ে এই পোস্ট যেন কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না ফুটবলপ্রেমীরা।

অনেকেই লিখেছেন, ‘সহানুভূতি, ভদ্র আচরণের নাম গন্ধ নেই নেইমারের মধ্যে।’ অনেকে আবার মনে করছেন, মোটা অঙ্কের অর্থ পেয়েই তার স্বাভাবিক জ্ঞান-বুদ্ধি লোপ পেয়েছে। এক স্কটিশ ব্যক্তি লিখেছেন, ‘নিজে সাময়িক সময়ের জন্য হুইলচেয়ারে বসে নেইমার নিজেকে হকিংয়ের সঙ্গেই তুলনা করে ফেলেছেন।’ তাই অনেকের মতে, এর চেয়ে বরং হকিংকে নিয়ে কিছু না লিখলেই ভালো করতেন নেইমার।