বেশির ভাগঈ ভারতীয় জুয়াড়ি : আইসিসি

প্রকাশিত

এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা আইসিসি। যেখানে জড়িয়ে গেছে সনৎ জয়সূর্যের নাম। আইসিসির তরফে এও বলা হয়েছে, আরও অনেক নামই সামনে আসবে। কিন্তু তারই মাঝে আরও একটা তথ্য প্রকাশ করেছে তারা।

আইসিসির দুর্নীতি দমন শাখার আলেক্স মার্শাল জানিয়েছেন, ক্রিকেট গড়াপেটার সঙ্গে জড়িত বেশির ভাগ দুর্নীতিগ্রস্ত জুয়াড়িই হল ভারতীয়।

একটি ওয়েবসাইটে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে ক্রিকেট গড়াপেটা তদন্তের দায়িত্বে থাকা মার্শাল বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কায় আমরা দেখেছি, জুয়াড়িরা হয় স্থানীয় নয় ভারতীয়। কিন্তু বিশ্বের বেশির ভাগ জায়গায় দেখা যাচ্ছে, দুর্নীতিগ্রস্ত জুয়াড়িরা প্রায় সবাই ভারতীয়।’

মার্শাল এমন দিনে এই কথা বললেন, যে দিন আবার নিজের অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন পাকিস্তানের লেগস্পিনার দানিশ কানেরিয়া। এবং কানেরিয়া যে জুয়াড়ির কথা বলেছেন, সেই অনু ভট্টও একজন ভারতীয়।

এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা ঘরের মাঠে ওয়ান ডে সিরিজ খেলছে ইংল্যান্ডের সঙ্গে। যেখানে আইসিসি সমস্ত সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের ছবি দেখায় দু’দলের ক্রিকেটারদের।

মার্শাল বলেন, ‘এমন লোকেদের ছবি আমরা দেখিয়েছি, যারা বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ক্রিকেটারদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়তে চাইছে।’ আইসিসি আপাতত ১২ থেকে ২০ জনের ওপর নজর রেখেছে। যাদের মধ্যে ছ’জন ক্রিকেট গড়াপেটার সঙ্গে ভাল রকম জড়িত বলে সন্দেহ।

মার্শালের বক্তব্য, ‘আমরা ছ’জনের ছবি দেখিয়েছি। তবে নজরে আরও ১২ থেকে ২০ জন আছে। যাদের ছবি দেখানো হয়েছে, তারা সবাই পুরুষ। তবে তার বাইরে জনা দু’য়েক নারীর ওপরও আমাদের নজর আছে।’

জুয়াড়িদের তালিকায় ভারতীয়দের নাম সবার উপরে থাকলেও আইসিসির নজর এখন শ্রীলঙ্কার ওপর।

মার্শাল বলেছেন, ‘বেশ কয়েকটি দেশ নিয়ে আমরা খুব উদ্বিগ্ন। এদের মধ্যে শ্রীলঙ্কাও আছে। এই সব দেশ থেকে এত রিপোর্ট আসছে আর এত তদন্ত হচ্ছে যে, বোঝা যায়, দুর্নাতির ছায়া খুব ভাল ভাবে আছে।’

এর পরে মার্শাল যোগ করেন, ‘গত ১২ মাসে সব চেয়ে বেশি তদন্তের ঘটনা ঘটেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট নিয়ে। দু’নম্বরে আছে জিম্বাবোয়ে।’

সূত্র: আনন্দবাজার।