ব্ল্যাকমেইল করে টাকা আদায়, পুলিশসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক বগুড়া ,

বগুড়ায় দুই পুলিশ কর্মকর্তা ও এক হাবিলদারসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। স্থানীয় চাঁদাবাজ চক্রের সহযোগিতায় এক ব্যক্তিকে আটকে রেখে ব্ল্যাকমেইল করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ায় এই মামলা করা হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন, বগুড়া নারুলী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর তারিক, এসআই আব্দুর রহীম, হাবিলদার (এটিএসআই) জাহাঙ্গীরসহ মোট ৮ জন।

সদরের বজরুকবাড়ীয়া এলাকার সিরাজ প্রাং এর ছেলে শাহ আলম সোমবার বগুড়া সদরের চিফ জুডিশিয়াল আদালতে এই অভিযোগ করলে আদালতের বিচারক শ্যাম সুন্দর সেটি আমলে নেন।

পরে বিচারক বিষয়টি স্বশরীরে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য বগুড়া সদরের নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মুহা. আজিজুর রহমানকে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, গত ১৮ আগস্ট স্যানেটারি মিস্ত্রী শাহ আলম এলাকার নাজমুলের বাড়িতে কাজ করতে যান। সন্ধ্যায় এলাকার চাঁদাবাজ যুবকরা তাকে পরিকল্পিতভাবে একটি ঘরে আটকে রেখে উলঙ্গ অবস্থায় এক কিশোরকে তার ঘরে ঢুকিয়ে দিয়ে তার সঙ্গে ছবি তোলে। পরে তারা অনৈতিক কাজের অভিযোগে মারপিট করে তাকে জেলে পাঠানোর ভয় দেখায় এবং মোটা অংকের টাকা দাবি করে।

পরে ওই যুবকরা স্থানীয় নারুলী পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ ইন্সপেক্টর তারেক, এসআই আব্দুর রহিম ও হাবিলদার (এটিএসআই) জাহাঙ্গীরের সঙ্গে যোগসাজস করে তাদের ডেকে এনে ২ লাখ টাকা দাবি করে।

গত ২৬ আগস্ট চাঁদাবাজরা ঘটনার শিকার শাহ আলমের বাড়িতে পুলিশের ইনচার্জ তারিক, এসআই আব্দুর রহীম ও এটিএসআই (হাবিলদার) জাহাঙ্গীরকে সঙ্গে করে নিয়ে এলে তিনি ইন্সপেক্টর তারিককে ৪৫ হাজার টাকা দেন। এ সময় সব মিলিয়ে ২ লাখ টাকা না দিলে তাকে জেলের ভয়ও দেখান অভিযুক্তরা।