ভালুকায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণ: দগ্ধ শাহীনের মৃত্যু

প্রকাশিত

ময়মনসিংহের ভালুকায় একটি ভবনে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধ খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) ছাত্র শাহীন মিয়া (২৪) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

বুধবার (২৮ মার্চ) দিবাগত রাত পৌনে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

শাহীনের বাবার নাম নুরুজ্জামান আকন্দ। বাড়ি সিরাজগঞ্জের শাহবাজপুর উপজেলার সাতবাড়ি গ্রামে। দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে শাহীন সবার ছোট ছিলেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

বাচ্চু মিয়া জানান, ময়নাতদন্তের জন্য শাহীনের মরদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে।
বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল জানিয়েছেন, শাহীনের শরীরের ৮৩ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

গত শনিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে ভালুকার জামিরদিয়া মাস্টারবাড়ি এলাকার আর এস টাওয়ার নামে একটি ছয়তলা ভবনের তৃতীয় তলায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে ওই বাসার কাচ, পার্টিশন ও দুটি দেয়াল চুরমার হয়ে যায়। এতে তাওহীদুল ইসলাম তপু নামে ২৪ বছর বয়সী এক যুবক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হন বাকি তিনজন।

হতাহত ব্যক্তিরা প্রত্যেকেই ভালুকা উপজেলার মাস্টারবাড়ি এলাকায় অবস্থিত স্কয়ার ফ্যাশন লিমিটেড নামের একটি পোশাক কারখানায় ইন্টার্নি কোর্স করছিলেন।