মনোহরদীতে লাউ বাগান কেটে ফেলায় দিশেহারা কৃষক

প্রকাশিত

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি মনোহরদী উপজেলায় এক প্রান্তিক কৃষকের জমির লাউ গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। গত মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের নলুয়া গ্রমে এ ঘটনা ঘটে। এই গ্রামের কৃষক মো. শাহজাহান মিয়া (৪৮) এর বাড়ির পাশে লাউ বাগান ক্ষেতে এই ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়। ক্ষতিগ্রস্ত মো. শাহজাহান মিয়া জানান, বিগত কয়েক বছর ধরে তিনি বাড়ির পাশের জমি ও পুকুরে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে লাউ সহ অন্যান্য তরকারি ও মাছ চাষ করে আসছেন। এবার তিনি ১০ শতাংশ জমিতে লাউ চাষ করেছেন। জমি চাষ ও পরিচর্যা করতে এ পর্যন্ত তাঁর প্রায় ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। চাষাবাদ করার জন্য তিনি এনজিও হতে বেশ কিছু টাকা ঋণও নিয়েছেন। লাউগাছে এবার প্রচুর ফুল ও ফল এসেছিল। ৪০ টি লাউগাছ লাগানো হয়েছিল বাগানে। এগুলোতে হাজার খানেক লাউও ধরতে শুরু করেছিল। বুধবার সকালে তিনি লাউয়ের জমিতে পানি দিতে গিয়ে দেখেন বাগানের সব লাউগাছ গোড়া থেকে কাটা। কে বা কারা রাতের আঁধারে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এগুলো কেটে ফেলেছে। এতে তাঁর প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধিত হয়েছে। শাহজাহান মিয়া বলেন, বিএ পাশ করে কৃষি কাজ করে সংসার চালাই। এমনিতে অভাবের কারণে দুই সন্তানের লেখাপড়া ও সংসারের খরচ চালাতে হিমশিম খেতে হয়। এ অবস্থায় তিনি দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। তিনি আরও বলেন, বেশ কিছুদিন পূর্বে একদল সন্ত্রাসী আমার ভাইকে ও আমাকে মারধর করে এবং আমার পুকুর পাড়ে থাকা ১৫ টি গাছ কেটে ফেলেছিল । ওরাই হয়তো আবার এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে এমন ধারনা ভুক্তভোগীদের। এরা বহুবার বিভিন্ন হুমকিও প্রদান করে। পূর্বের এসব ঘটনা নিয়ে মনোহরদী থানায় অভিযোগও দেয়া হয়েছিল। ক্ষতিগ্রস্তের ভাই সবুজ হাসান বি.এস.সি জানান, পূর্বে একদল সন্ত্রাসী আমাকে ও আমার ভাইকে মারধর করেছিল যার অভিযোগ মনোহরদী থানায় করেছিলাম। গতকাল রাতে আমার ভাইয়ের লাউ বাগান কেটে ফেলে প্রায় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে। আমাদের ধারনা পূর্বে যারা আমাদের মারধর করেছিল তারাই হয়তো এ ঘটনা ঘটাতে পারে। চন্দনবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরন বলেন, ঘটনাটি আমাকে মোবাইল ফোনে জানালে আমি ঘটনাস্থলে যাই। কাজটি খুবই অমানবিক ও দুঃখজনক। যারা কাজটি করেছে তাদের যেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়। মনোহরদী থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবুল কালাম জানান, বুধবার বিকেলে আমরা ঘটনাটি জানতে পেরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। অভিযোগ পেলে এ ব্যাপারে ব্যাবস্থা নেয়া হবে।