মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ নরসিংদী পৌরবাসী

প্রকাশিত
নরসিংদী প্রতিনিধি-  মশা নিয়ে রীতিমত দুঃচিন্তায় পড়েছে নরসিংদী পৌরবাসী। মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে পৌরবাসী। নরসিংদী পৌরসভা ১ম শ্রেণীতে উন্নত হলেও নেই কোন নাগরিক সুবিধা। এ শহরটি শিল্প নগরী হিসেবে খ্যাত। ৯টি ওয়ার্ডে প্রায় ৯৯,৫৭৬ জন ভোটার ও ভোটারবিহীন প্রায় ২ লক্ষ মানুষসহ মোট প্রায় ৩ লক্ষ মানুষের বসবাস এ শহরে। এত ঘনবসতি পূর্ণ পৌরসভা হওয়া সত্ত্বেও নেই কোন নাগরিক সেবা। পৌর বাজেট থেকে প্রতি বছর মশা মারা জন্য ঔষধের অর্থ বরাদ্দ রাখা হয়। বরাদ্দকৃত অর্থের বিনিময়ে মশার ঔষধ  ছিটানোর কথা।কিন্তু পৌরবাসী মশার উপদ্রব থেকে বাচাঁর জন্য যে ঔষধ ছিটানোর কথা সে সেবা তারা আজও পর্যন্ত পাইনি। এতে করে নাগরিক সেবা বন্ঞ্বিত হচ্ছে পৌরবাসী। ৩ নং ওয়ার্ডের স্হায়ী বাসিন্দা খোরশেদ আলমের সাথে কথা বলে জানা যে, দিন দিন পৌর কর বাড়ছে। দশ টাকার পৌর কর, এখন দিচ্ছি একশ টাকা। আমাদের এলাকার রাস্তা,ড্রেনের কি অবস্হা? বাসা বাড়ির ময়লা আবর্জনা রাস্তার উপর দিনের পর দিন স্তুপ পড়ে থাকে। ড্রেনগুলো নিয়মিত পৌর সুইপাররা পরিস্কার করতে আসে না। আর মশার কথা কি বলবো, এদিকে করোনা অন্যদিকে মশার হানা। রীতিমত আমরা বেকায়দায় আছি? আগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌরসভার লোকেরা মশার ঔষধ ছিটাতো। আর এখন আমার জানামতে পাঁচ বছরের মধ্যে একবার মশার ঔষধ ছিটানোর জন্য আসচ্ছে কিনা সন্দেহ। দিনের বেলাতেই মশার জ্বালায় ঘরে থাকতে পারিনা আর রাতেতো দূরের কথা। গত কয়েকদিন আগে আমার ছোট ছেলে বয়স ৯ বছর। মশার কামড়ে ডেঙ্গু জ্বর হয়ছিল। আমরা পৌরবাসী মশার আতংকে আছি এভাবেই আমাদের প্রতিনিধি’র সাথে বলছিল উক্ত ওয়ার্ডের বাসিন্দা। নরসিংদী পৌরবাসী এ মশার উপদ্রব থেকে বাঁচার জন্য দ্রুত মশার ঔষধ ছিটানোর জন্য পৌর কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছে।