মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটাতে পারে নৌকা : এস এম কামাল

প্রকাশিত

রাজশাহী প্রতিনিধি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম ছাত্রনেতা জনাব এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, একমাত্র নৌকা প্রতিকই পারে বাংলার গরীব-দুঃখী মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন করতে। তাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে জননেত্রী, শেখ হানিার হাতকে শক্তিশালী করুন এবং নিজেদের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটান।

তিনি সোমবার সকাল ১১টায় রাজশাহী জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ কর্তৃক আয়োজিত বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে বাংলার জনগণ বঙ্গবন্ধু কন্যা, দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রেখে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনে। এরপর সর্বশেষ ২০১৪ সালের নির্বাচনে আবারো এ দেশের জনগণ নৌকার উপর তাদের আস্থা অব্যাহত রাখে। বাংলার জনগণ নৌকার উপর আস্থা রাখার কারণ, আওয়ামী লীগ সরকার তাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছে, দেশের উন্নয়ন করেছে।

বাংলার মানুষ এখন সুখে-শান্তিতে জীবন-যাপন করছে। এক সময় উত্তারঞ্চালকে সবাই মঙ্গা এলাকা হিসেবে চিনত। সেই মঙ্গা এখন শুধুমাত্র স্মৃতি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে শুধুমাত্র রাজশাহী অঞ্চল না, তিনি সমগ্র বাংলাদেশের চিত্র পরিবর্তন করে দিয়েছেন। বাংলাদেশ এখন বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল।

এ সময় বিএনপির সমালোচনা তিনি করে বলেন, বিএনপি-জামাত জোট সরকারের আমলে বাংলাদেশ অন্ধকারে ছিল। বাংলাদেশ তখন জঙ্গী, সন্ত্রাসীদের দেশে পরিণত হয়েছিল। পরপর পাঁচবার বাংলাদেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। বেগম জিয়া এবং তার গুণধর ছেলে এতিমদের টাকা মেরে খেয়েছে। এতিমদের টাকা মেরে ম্যাডাম জিয়া এখন জেল খাটছেন। আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে বিএনপি-জামাতের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াই। আগামী নির্বাচনে আবারো নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করি এবং উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. জাহাঙ্গীর কবির নানক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী সাইফুজ্জামান শিখর। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে রাজশাহী মহানগর, জেলা ও বিভিন্ন উপজেলার নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।