যুবলীগ নেতাকে মারধরের ঘটনায় সরাইল থানায় মামলা দায়ের

প্রকাশিত

 

সরাইল প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক বোরহান উদ্দিনের ওপর হামলার ঘটনায় ১৪জনকে আসামি করে  রবিবার  রাতে সরাইল থানায় একটি মামলা হয়েছে।

যুবলীগ নেতা বোরহান উদ্দিন বাদি হয়ে, সরাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও উপজেলার পাকশিমুল ইউনিয়নের ভূঁইশ্বর গ্রামের  অ্যাডভোকেট মোখলেছুর রহমান সহ ১৪জনকে আসামি করে সরাইল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এছাড়াও অজ্ঞাত আরো ১৫জনকে আসামি করা হয়েছে।  মামলার প্রধান আসামি ভূঁইশ্বর গ্রামের আতিকুল রহমানের ছেলে জুনাইদ মিয়া।

স্থানীয়রা জানায়, অরুয়াইল বাজার এলাকায় একটি দোকানের মালিকানা  নিয়ে জুনাইদ মিয়া ও স্থানীয় পরিমল মল্লিকের সঙ্গে বিরোধের সৃষ্টি হয়।

পরে বিষয়টি মিমাংসা দিতে রোববার বিকেলে উপজেলা পরিষদে দু’পক্ষকে ডেকে সালিশ বৈঠক   করেন সরাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুল হক মৃদুল এবং সরাইল সার্কেল-এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে অরুয়াইল ও পাকশিমুল ইউপির জনপ্রতিনিধি-গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা । সালিশ বৈঠকে উভয় পক্ষই বিষয়টি মেনে নেয়।

সন্ধ্যায় দু’পক্ষের লোকজন সালিশ বৈঠক থেকে ফেরার পথে উপজেলা  ডাক বাংলোর সামনে হঠাৎ আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট মোখলেছুর রহমানের নির্দেশে ও জুনাইদ মিয়ার নেতৃত্বে কিছু  লোক যুবলীগ নেতা বোরহান উদ্দিনের ওপর  হামলা চালায়। তারা যুবলীগ নেতা বোরহান উদ্দিনকে এলোপাতাড়ি মারধোর শুরু করে। এসময়ে যুবলীগ নেতা বোরহানকে রক্ষা করতে অরুয়াইল বাজারের ব্যবসায়ী মুখলেছুর রহমান ও রফিক মেম্বার এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা তাদেরকেও মারধোর করে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে হামলাকারীরা  দ্রুত পালিয়ে যায়।

এ বিষয়েজানতে চাইলে সরাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) শফিকুল ইসলাম বলেন, এ হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে।