রাজধানীতে আজও গণপরিবহন সংকট

প্রকাশিত

সড়ক দুর্ঘটনায় সহপাঠী নিহতের পর সে ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসায় রাজধানী ঢাকায় গণপরিবহনের সংকট তৈরি হয়। এরপর নিরাপত্তার অজুহাতে অধিকাংশ গণপরিবহনের চালকরা রাস্তায় গাড়ি বের করছেন না। ফলে রাজধানীর স্থবিরতা অষ্টম দিনেও কাটেনি।

বিভিন্ন স্থানে দেখা যায়, বাসশূন্য ঢাকায় গন্তব্যে পৌঁছাতে গিয়ে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নগরবাসীকে। রাস্তায় বিআরটিসির সীমিত সংখ্যাক বাস ছাড়া বেসরকারি কোনো পরিবহন দেখা যায় নি।

বিপুলসংখ্যক পথচারী নারী-পুরুষের এখন ভরসা হয়ে উঠেছে রিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, লেগুনা ও ট্রাক-পিকআপ।
অনেককে অবশ্য হেঁটে গন্তব্যের দিকে যেতে দেখা গেছে। কারণ সিএনজি, ট্যাক্সি এমনকি রিকশাও অন্যান্য দিনের মতো পাওয়া যাচ্ছে না। কিছু রাস্তায় লেগুনা চলাচল করছে কিন্তু তাতে প্রচণ্ড ভিড়ের কারণে উঠবার উপায় নেই।

কিছু বিআরটিসির বাসের দেখা মিলেছে। তবে হাজার হাজার যাত্রীর তুলনায় এ কয়েকটি বাস অপ্রতুল।

অনেকেই বলছেন, গত ২৯ জুলাই সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় অলিখিত ধর্মঘটে গেছে মালিক-শ্রমিকরা। প্রায় সব রুটেই বাস সংকট তৈরি হয়েছে।