রাজধানীর দোহারে যুবককে পিটিয়ে হত্যার বিচার চেয়ে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

প্রকাশিত
বিশেষ প্রতিনিধিঃ ঢাকার দোহারে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দিন দুপুরে ফয়সাল (১৮) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী।
বুধবার দুপুরে উপজেলার শাইনপুকুর তিনদোকান ফরিদ মিয়ার খামারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ফয়সাল মুকসুদপুর ইউনিয়নের শান্তিনগর এলাকার মজনু শেখের ছেলে।
স্থানীয় ও পুলিশ জানায়, ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে পাশ্ববর্তী শ্রীনগর উপজেলার বরিবরখোলা এলাকার আল-আমীন ও আশরাফের সাথে ফয়সালের সাথে বাগবিতন্ডা ঘটে। বুধবার দুপুরে ফুটবল খেলার মাইকিং করার সময় বরিবরখোলা এলাকায় গেলে ফয়সালকে অটোগাড়ি থেকে নামিয়ে লাঠিসোটা দিয়ে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।
এসময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে আল-আমীন ও আশরাফসহ তার সঙ্গীরা পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা ফয়সালকে আহতাবস্থায়  উদ্ধার করে দোহার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত  চিকিৎসক ওমর ফারুক তাকে মৃত ঘোষনা করে। তিনি আরও বলেন, মাথায় গুরুতর আঘাত ও অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হতে পারে।
এলাকাবাসী আরও জানায়, দীর্ঘ তিন বছর পূর্বে শান্তিনগর গ্রামের মজনু শেখের ছেলে ফয়সালের বড় ভাই রিপনের সাথে পাশ্ববর্তী শ্রীনগর উপজেলার বরিবরখোলা এলাকার শেখ মনাইয়ের কন্যা মুন্নি আক্তারের সাথে বিয়ে হয়। পারিবারিক বনিবনা না হওয়ায় বছর খানেক পর তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। বিবাহ বিচ্ছেদকে ঘিরে উভয় পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেও এ ঘটনা ঘটতে পারে।
দোহার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ সাজ্জাদ হোসেন হত্যাকান্ডের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ধারনা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জেরেই হত্যাকান্ড ঘটেছে। হত্যাকান্ডে অন্য কোন বিষয় আছে কিনা তদন্ত চলছে।  এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলার প্রস্তুুতি চলছে। আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।