রাজধানীর বনানীতে ফের ধর্ষণের মামলায় দুজন কারাগারে

প্রকাশিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর বনানীতে ফের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে তরুণী ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার তরুণীর দায়ের করা মামলায় অভিযুক্ত দুই আসামিকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

অভিযুক্ত দুই আসামি হলেন-সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার দারিয়াপুরের আনোয়ার হোসেনের ছেলে রাজিব আহম্মেদ (২৮) এবং বরিশালের মুলাদী উপজেলার চর ডিক্রি গ্রামের আমির হোসেন ওরফে আজমির ডাক্তারের ছেলে মো. রুবেল হোসেন ওরফে জয়।

সোমবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন আসামিদের আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও ন্যায়বিচারের স্বার্থে প্রত্যেকের পাঁচ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন।

অপরদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন চান। তবে মামলার কেস ডকেট (সিডি) না থাকায় ঢাকা মহানগর হাকিম মোহা. আহসান হাবীব আসামিদের কারগারে পাঠিয়ে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি রিমান্ড শুনানির তারিখ ধার্য করে দেন।

মামলায় ওই তরুণী উল্লেখ করেন, বেশকিছু দিন আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তার রাজীবের পরিচয় হয়। গত শনিবার রাতে জন্মদিনের পার্টির কথা বলে তাকে দ্য স্টার গেস্ট হাউজে আসতে বলেন রাজীব। পরে ওই তরুণী রাত সাড়ে ৮টার দিকে গেস্ট হাউজে আসেন। সেখানে রাজীবের সঙ্গে তার বন্ধুও উপস্থিত ছিলেন। তারপর রাতভর সেখানে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয় বলে তরুণী মামলায় অভিযোগ করেছেন। সেখান থেকে ছাড়া পেয়ে গতকাল রোববার রাতে মামলা করেন তিনি। এরপরই দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত, এর আগেও জন্মদিনের দাওয়াতে যোগ দিতে গিয়ে বনানীতে দুই তরুণী ধর্ষণের শিকার হন। গত বছরের ২৮ মার্চ রেইন ট্রি হোটেলের ওই ঘটনায় একই বছরের ৬ মে বনানী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। ধর্ষণ মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে শাফাত আহমেদ, শাফাতের বন্ধু নাঈম আশরাফ ওরফে আবদুল হালিমসহ পাঁচজনকে আসামি করা হয়। বর্তমানে মামলাটি নিম্ন আদালতে বিচারাধীন এবং সব আসামি কারাগারে রয়েছেন।

এরপর একই বছরের ৪ জুলাই রাতে জন্মদিনের দাওয়াত দিয়ে বনানীর বাসায় ইভান নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেন এক তরুণী। পরদিন ৫ জুলাই বনানী থানায় বাহাউদ্দিন ইভানকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেন তিনি। ৬ জুলাই নারায়ণগঞ্জ থেকে ইভানকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।