রাজশাহীতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মানববন্ধন

প্রকাশিত

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীর একটি কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে তার ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার সকালে অধ্যক্ষের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ এবং মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। মহানগরীর উপকণ্ঠ কাপাশিয়া এলাকার মহানগর টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট নামের একটি কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ জহুরুল আলম রিপনের (৪০) বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগী ছাত্রী কলেজের স্কুল শাখার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। স্থানীয়রা জানান, ভালো ফলাফলের প্রলোভন দেখিয়ে অধ্যক্ষ রিপন ওই ছাত্রীকে প্রায়ই অনৈতিক প্রস্তাব দিতেন। ছাত্রী এতে সাড়া দিত না। রোববার দুপুরে অধ্যক্ষ ওই ছাত্রীকে কৌশলে তার অফিসে ডাকেন। এরপর তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এ সময় ওই ছাত্রী চিৎকার দিলে কলেজের অন্য শিক্ষকরা এগিয়ে যান। ঘটনা জানতে পারেন কলেজের শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসী। তখন অধ্যক্ষ রিপন কলেজ থেকে পালিয়ে যান। পরে ওই ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের ব্যাপারটি জানান। এরপরই বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন ছাত্রীর স্বজন এবং এলাকাবাসী। সোমবার সকালে তারা কাপাশিয়া এলাকায় বিক্ষোভ শুরু করেন। এরপর তারা অধ্যক্ষ রিপনের শাস্তির দাবিতে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের পাশে মানববন্ধন করেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নগরীর মতিহার থানার ওসি মেহেদী হাসান বলেন, এলাকাবাসী অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ তুলেছেন। শাস্তির দাবিতে তারা মানববন্ধনও করেছেন। কিন্তু কেউ এই ব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযোগের ব্যাপারে কথা বলতে অধ্যক্ষ জহুরুল আলম রিপনের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। তবে এলাকাবাসী জানান, ঘটনার পর থেকে অধ্যক্ষ রিপন গা ঢাকা দিয়েছেন।