রোহিঙ্গা ইস্যুতে নিবিড়ভাবে কাজ করবে বাংলাদেশ-তুরস্ক

প্রকাশিত

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে: 

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশ ও তুরস্ক নিবিড়ভাবে কাজ করে যাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে সফররত তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিমের সঙ্গে যৌথ বিবৃতি প্রদানকালে এ কথা জানান।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শিমুল হলে একান্ত বৈঠকে বসেন শেখ হাসিনা ও ইয়ালদিরিম। একান্ত বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের চামেলী হলে স্ব স্ব দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন তারা। এরপর দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে করবী হলে বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে দু’টি সমঝোতা স্মারক সই হয়।

প্রধানমন্ত্রী তার বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশ ও রোহিঙ্গাদের প্রতি তুরস্কের অব্যাহত সহযোগিতার জন্য দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়্যব এরদোগানকে ধন্যবাদ। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট দ্বিপাক্ষিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

‘আলোচনায় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংকটসহ দু’দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট দ্বিপাক্ষিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বিষয়ে নিবিড়ভাবে কাজ করতে এবং পরস্পরকে সহযোগিতা চালিয়ে যেতে আমাদের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছি।’

বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, প্রতিরক্ষা, শিক্ষা, পর্যটন, যোগাযোগসহ প্রধান প্রধান খাতে নিজেদের সহযোগিতা জোরদারের বিষয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।বিবৃতি দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ডানে), করতালি দিচ্ছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিম। ছবি: পিআইডিদুই প্রধানমন্ত্রীর যৌথ বিবৃতির আগে বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই), শিল্প উৎপাদন, মান নির্ধারণ, সক্ষমতা বৃদ্ধি, অভিজ্ঞতা বিনিময় ও দক্ষতা উন্নয়নের বিষয়ে দু’টি সমঝোতা স্মারক সই হয়। প্রধানমন্ত্রী তার বক্তৃতায় এ দু’টি স্মারকের কথাও উল্লেখ করেন।

দু’দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও পারস্পরিক স্বার্থে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে বাংলাদেশ ও তুরস্ক একমত জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা আশা করি, আমাদের উন্নয়ন যাত্রায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে তুরস্ক।

শেখ হাসিনার পর বিবৃতি দেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী ইয়ালদিরিমও। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও এ অঞ্চলের সঙ্গে সম্পর্ককে আরও সংহত ও ভ্রাতৃত্বপূর্ণ করা তুরস্কের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তুরস্কে সেনা

Be the first to write a comment.

Leave a Reply