র‌্যাবের সাইবার ইউনিটের নজরে, ক্ষমা চাইলেন নোবেল

প্রকাশিত

অনলাইন ডেস্ক-

বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে বেশ বিতর্কের জন্ম দিচ্ছেন কণ্ঠশিল্পী মাইনুল আহসান নোবেল। দেশের লিজেন্ড শিল্পীদের অসম্মান করেও ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন পশ্চিমবঙ্গের সারেগামাপা-২০১৯ ‘র এই দ্বিতীয় রানার্সআপ। শুধু স্টাটাসই নয়, বিভিন্নজনের সাথে তর্কেও জড়িয়ে পড়েন তিনি।

আর এই কারণে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান- ২ (র‍্যাব) এর কার্যালয়ে ডাকা হয় তাকে। অবশেষে নিজের ভুল স্বীকার করে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাইলেন এই গায়ক। রবিবার (২৪ মে) বিকেলে নোবেল তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ তথ্য জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন।

তিনি জানান, এসব ছিলো তার ‘তামাশা’ নামের একটি গানের প্রচারণার জন্য। নোবেল লিখেছেন ‘আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে র‌্যাব-২ এর মনির জামান ভাইয়ের কাছে লিখিত বক্তব্য পেশ করেছি। সকলকে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছা এবং ‘তামাশা’ গানটি শোনার আমন্ত্রণ।

এর আগে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের এডিসি নাজমুল ইসলাম নিজের ব্যক্তিগত প্রোফাইলে একটি পোস্ট করেন। তিনি ওই পোস্টে লেখেন, নোবেলম্যান! আপনার পেজের অনেক পোস্ট দেখলাম। দেশের মানুষ আপনাকে ভালোবাসে, আপনার কাছ থেকে অনেকেই অনেকভাবে শেখে। আমি একজন সাইবার কপ হিসেবে আশা করি, আপনি আপনার পোস্টের মাধ্যমে সাইবার নীতি মেনে এ দেশের একজন সম্মানিত ব্যক্তি ও গুণীজন হিসেবে সাইবার রিজিলিয়েন্ট সমাজ বিনির্মাণে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখবেন। আপনি ভাল থাকুন!

এরপর নোবেলের টনক নড়ে। নিজের ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চেয়ে একটি পোস্ট করেন নোবেল। ওই পোস্টে নোবেল লেখেন, ‘আমি অত্যান্ত দুঃখিত নাজমুল স্যার। আমি কাউকে আপত্তি করে পোস্ট করেনি। মূলত আমার নতুন গান ‘তামাশা’ মুক্তি উপলক্ষে দর্শকের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য এই পোস্ট দিয়েছি। তবে আমি দুঃখিত। আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি।

গত ১০ বছরে বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে কোনো সৃষ্টিশীল গান হয়নি দাবি করে নিজের দুটি গানের কথা পোস্ট করেন নোবেল নিজের ফেসবুক পেইজে। যেখানে তিনি ভারতের জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্তদের সঙ্গে মাত্র দুই বছরে দুটি গান করে ফেললেন, অথচ ১০ বছরে বাংলাদেশের সঙ্গীতভূবনে কোনো গানই সৃষ্টি হয়নি দাবি করেন- গত ১৯ মে এই পোস্ট করার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় ওঠে।