শনিবারে কি মিটবে শাকিব-ববির নোলক সিনেমার দ্বন্দ্ব

প্রকাশিত

প্রযোজক-পরিচালক দ্বন্দ্বে আশি ভাগ শুটিং শেষ করেও আটকে আছে আলোচিত চলচ্চিত্র ‘নোলক’ ছবির নির্মাণ কাজ। কথা ছিলো কোরবানি ঈদে সাকিব সনেট প্রযোজিত ও রাশেদ রাহা পরিচালিত ছবিটি মুক্তি পাবে বলে শোনা গিয়েছিলো। কিন্তু সেটি আর সম্ভব হয়নি।

পরিচালক রাশেদের উপর অনাস্থা থাকায় তাকে পরিবর্তন করে নতুন পরিচালক দিয়ে ছবি নির্মাণ করতে চাইছেন প্রযোজক সাকিব সনেট। সে নিয়েই দ্বন্দ্বের শুরু। প্রায় এক মাস ধরেই কোনো শুটিং হচ্ছে না ছবিটির। ফলে ছবিটি নিয়ে বিভ্রান্তিতে রয়েছেন এর নায়ক শাকিব খান ও অন্যান্য কলাকুশলীরা। তারা ভাবছেন, কবে মিটবে ‘নোলক’ সিনেমার দ্বন্দ্ব?

এদিকে শোনা যাচ্ছে, আগামী শনিবার এই ছবির সব দ্বন্দ্বের অবসান ঘটতে পারে। ছবিটির পরিচালক রাশেদ রাহার অভিযোগের ভিত্তিতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করছে। সমিতির পক্ষ থেকে তলব করা হয়েছে এর প্রযোজক ও পরিচালককে।

সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন জাগো নিউজকে বলেন, ‘‘নোলক’ ছবির প্রযোজককে ডাকা হয়েছে। পরিচালকও থাকবেন। আগামী শনিবার মিটিং করবো আমরা। সেদিনই জানা যাবে কার হাতে থাকছে শাকিব-ববির নোলকের পরিচালনার ভার। আশা করছি একটি ইতিবাচক ফলাফল আসবে। ততদিন ছবির সবরকম কাজ বন্ধ থাকবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। একজন প্রযোজক চাইলেই একটি ছবির আশি ভাগ শুটিং করার পর সেই ছবি থেকে কোনো পরিচালককে সরিয়ে দিতে পারেন না। কেন ‘নোলক’ ছবির প্রযোজক এমনটি করতে যাচ্ছেন সেটা শোনা হবে। পরিচালকের বক্তব্যও শোনবো। সবকিছু যাচাই করে সিদ্ধান্ত দেবে পরিচালক সমিতি। একটি ভালো ছবি এইসব দ্বন্দ্ব নিয়ে আটকে থাকবে এটি ইন্ডাস্ট্রির জন্য ভালো কথা নয়। আমরা সুন্দর সমাধানের পথে হাঁটবো।’

এদিকে শোনা যাচ্ছে, ‘নোলক’ ছবির প্রযোজক গতকাল মঙ্গলবার থেকে রাজধানীর কোক স্টুডিওতে নিজেই পরিচালক হিসেবে শুটিং শুরু করেছিলেন। কিন্তু পরিচালক সমিতির আপত্তিতে তিনি শুটিং বন্ধ রেখেছেন। পরিচালক সমিতিতে শনিবারের মিটিং শেষেই নির্ধারিত হবে এই ছবির পরিচালনা ভাগ্য।

প্রসঙ্গত, বেশ আয়োজন করেই চলতি বছরের শুরুর দিকে ঘোষিত হয়েছিলো ‘নোলক’ সিনেমার নাম। শাকিব খান এই ছবিতে ৫০ লাখ টাকা পারিশ্রমিকে চুক্তিবদ্ধ হয়ে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছিলেন। এই নায়কের ক্যারিয়ারে কোনো ছবিতে এটাই সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকের রেকর্ড।

এতে শাকিবের বিপরীতে জুটি বেঁধেছিলেন ববি। শাকিব-ববির সঙ্গে এই ছবিতে বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে আছেন আরও এক জুটি মৌসুমী ও ওমর সানী। ছবিতে চমৎকার একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন গানের যুবরাজ আসিফ আকবর। ভারতের রামুজি ফিল্মসিটিসহ বিদেশের নানা মনোরম লোকেশনে হয়েছে এর দৃশ্যায়ন। এমনি নানা কারণে ছবিটি আলোচনার তুঙ্গে রয়েছে। আছে শাকিবসহ অন্যসব তারকাদের ভক্তদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতেও।

তবে ছবির আশি ভাগ কাজ শেষ হতে না হতেই দ্বন্দ্বে জড়িয়ে গেলেন ছবির পরিচালক রাশেদ রাহা ও প্রযোজক সাকিব সনেট। সেই জের ধরে বন্ধ হয়ে আছে ছবির শুটিং। দ্বন্দ্বের কারণ, প্রযোজক চাইছেন না তার ‘নোলক’ ছবিটি রাশেদ রাহা পরিচালনা করুন। তার পরিবর্তে তিনি দায়িত্ব দিতে চান ইফতেখার চৌধুরীকে। প্রযোজক সাকিব সনেটের অভিযোগ, পরিচালনার দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ রাশেদ রাহা। তিনি অনেক টাকা এই ছবিতে লগ্নি করেছেন। তিনি আনাড়ি নির্মাতা দিয়ে লোকসানের মুখে পড়তে চান না।

এ অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করেছেন রাশেদ রাহা। তার দাবি, ছবির আশি ভাগ কাজ তিনি শেষ করেছেন। এখন কোনোভাবেই তিনি এই ছবির পরিচালনা থেকে সরে দাঁড়াবেন না। তিনি এও দাবি করেন, প্রযোজক কারো দ্বারা প্ররোচিত হয়েই এমন অদ্ভূত বাজে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বাধ্য হয়ে তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির দ্বারস্থ হন।

এখন দেখার অপেক্ষা, পরিচালক সমিতির হাত ধরে কোনো সুন্দর সমাধানের পথ পায় কী না ‘নোলক’।