শাকিবের সঙ্গে সংসার করতে চান অপু

প্রকাশিত

চিত্রনায়ক শাকিব খানের সঙ্গে সংসার করতে চান বলে মতামত প্রকাশ করেছেন তার স্ত্রী চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। বিচ্ছেদ চান না বলেও জানিয়েছেন নায়িকা। পূর্ব নির্ধারিত দিনে সোমবার সকাল ১১টায় মহাখালিস্থ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অঞ্চল-৩ এর অফিসে সালিশ বৈঠকে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন অপু।

তবে শাকিব খান সেখানে হাজির হননি। অপু বিশ্বাস বলেন, ‘শাকিবের জন্য আমি ধর্মান্তরিত হয়েছি। অন্যদের কারণে সে আমাকে ভুল বুঝে তালাক নোটিশ পাঠিয়েছে। আমার একটা সন্তান রয়েছে। আমি বিচ্ছেদ চাই না।’ অপু আরও বলেন, ‘শাকিব যে অভিযোগগুলো করেছে এগুলো ঠিক না। ওর সঙ্গে সামনাসামনি কথা বললে সব ঠিক হয়ে যেতো। ভেবেছিলাম আজ ওকে পাবো, কিন্ত পেলাম না।’ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উপসচিব হেমায়েত হোসেন শাকিব-অপুর সালিশি বৈঠকের দায়িত্বে রয়েছেন।

সোমবার দুপুরে তিনি বলেন, ‘পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী অপু বিশ্বাস সকাল এগারোটায় তার মামাকে নিয়ে আঞ্চলিক অফিসে আসেন। কিন্তু শাকিব খান উপস্থিত ছিলেন না। এর ফলে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। এসব ক্ষেত্রে দুই পক্ষকেই সালিশে উপস্থিত থাকতে হয়। সামনের মাসের ১২ তারিখে ফের তাদের ডাকা হয়েছে।

এক্ষেত্রে আবারো শাকিব-অপুকে পরবর্তী সালিশে উপস্থিত থাকতে চিঠি ও মেইল পাঠানো হয়েছে। যদি সেদিনও একপক্ষ উপস্থিত থাকে, এবং অন্যপক্ষে উপস্থিত না থাকে, তাহলে বুঝতে হবে তারা মিমাংসা চাচ্ছেন না। এভাবে ডিভোর্স নোটিশ পাঠানোর দিন থেকে নব্বই দিন চলবে। নব্বই দিন পর ডিভোর্স কার্যকর হয়ে যাবে।’

অপু বিশ্বাসের বক্তব্য প্রসঙ্গে সিটি কর্পোরেশনের আঞ্চলিক এই উপসচিব আরো বলেন, ‘অপুর বক্তব্য ছিলো স্পষ্ট। তিনি আমাদের বলেছেন, আমি শাকিবকে ভালোবেসে ধর্মান্তরিত হয়েছি, তাকে বিয়ে করেছি। এখন আমাদের সন্তানও আছে। তার সাথে তো আমি সংসার করতেই চেয়েছিলাম, এখনো চাই।’

প্রসঙ্গত, গত ২৮ নভেম্বরে স্ত্রী অপু বিশ্বাসকে তালাকনামা পাঠিয়েছিলেন চিত্রনায়ক শাকিব খান। নিয়ম অনুযায়ী গেল ২৪ ডিসেম্বর শাকিব-অপুকে সমঝোতা শালিশে ডাকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। ১৫ জানুয়ারি দুজনকেই সিটি কর্পোরেশনের অফিসে উপস্থিত থাকতে বলা হয়। কিন্তু এদিন অপু বিশ্বাস উপস্থিত থাকলেও আসেনি শাকিব খান। এ কারণে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি ফের শাকিব-অপুকে ডেকেছে সিটি কর্পোরেশন