শাবিতে ছাত্রজোটের সমাবেশে হামলা, রাবিতে নিজেদের ৫ কর্মীকে পুলিশে দিল ছাত্রলীগ

প্রকাশিত

রাজশাহী প্রতিবেদক: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ধর্মঘট চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ হামলা চালিয়েছে। এতে অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন। অপরদিকে নিজেদের মধ্যে মারামারি করা ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের পাঁচ কর্মীকে পুলিশে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।
শাবি সংবাদদাতা জানান, গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় ভার্সিটি গেট এলাকায় ছাত্রজোট নেতাকর্মীদের সমাবেশ চলাকালে এ হামলা চালানো হয়। আহতরা হলেন- শাবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের আহ্বায়ক প্রসেনজিৎ রুদ্র, সাধারণ সম্পাদক নাজিরুল আজম বিশ্বাস, জয়দ্বীপ দাশ, রশিদ ইফাজ, এম কে মুনিম, তৌহিদুজ্জামান জুয়েল, আব্দুল্লাহ আল ক্বাফী, নাঈম আশরাফ আদিব। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা ধর্মঘট সফল করতে বিশ্ববিদ্যালয় গেটে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ করছিলেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় একদল ছাত্রলীগের নেতাকর্মী এ সমাবেশ হামলায় চালায়। হামলায় জয়দ্বীপ দাশের মাথা ফেটে যায়। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নাজিরুল আজম বিশ্বাস বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশ শফিকুর রহমান জিয়ার নেতৃত্বে একদল ছাত্রলীগ নেতাকর্মী হামলা চালিয়েছে। এতে অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন। আমরা এ হামলার বিচার চাই।
শাবি প্রক্টর জহীর উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমি ছাত্রলীগের নেতাদের সাথে কথা বলেছি। তাদের কেউ হামলার বিষয়টি স্বীকার করেননি। তবে শুনেছি, ছাত্রলীগ নেতা শফিকুর রহমান জিয়ার নেতৃত্বে হামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে এ বিষয়ে কথা বলতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুহুল আমিনের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।
রাবি সংবাদদাতা জানান, গতকাল সোমবার বিকেলে শহীদ হবিবুর রহমান হলে তাদের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করার পর পিটিয়ে পুলিশে তুলে দেয়া হয়। পুলিশে দেওয়া পাঁচ কর্মী হলেন- নিতাই, শাহাদাত, ফয়সাল, শাকিব ও সৌরভ। তাদের মধ্যে শাকিব বঙ্গবন্ধু হল, সৌরভ শের-ই-বাংলা হল ও বাকিরা হবিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী।