শেরপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষ, আহত ১৬

প্রকাশিত

শেরপুর প্রতিনিধি-

শেরপুরের নকলা উপজেলার বানেশ্বর্দী ইউনিয়নে নয়আনীপাড়া গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে একই পরিবারের তিন নারীসহ অন্তত ১০ জনকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে অরেকটি পক্ষের বিরুদ্ধে। আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আজ সকালে একই গ্রামের মোন্তাজ, কাগজ আলী, জাহাঙ্গীর ও জুয়েলসহ অন্তত ১৫/২০ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দিনে দুপুরে বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়ার বাড়িতে হামলা চালায়। তাদের হামলায় কমপক্ষে দশ জন আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়াও এ ঘটনায় অপর পক্ষের ছয় জনও আহত হন। তাদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে দাবী করেছেন অপর পক্ষের লোকজন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নকলা উপজেলার বানেশ্বর্দী ইউনিয়নের নয়আনীপাড়া গ্রামের মৃত ফুল মামুদের ছেলে মোন্তাজদের সাথে একই গ্রামের প্রতিবেশী আনোয়ারা বেওয়া ও তার ছেলে মনির হোসেনদের ১০ শতাংশ জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ এবং আদালতে মামলা চলছে দীর্ঘদিন। আদালত গত ১ এপ্রিল বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়ার পক্ষে রায় প্রদান করে এবং প্রতিপক্ষদের ওই জমিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়।

এর প্রেক্ষিতে আজ অভিযুক্তরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আনোয়ারা বেওয়ার বসতবাড়িতে হামলা চালায়। একপর্যায়ে বাড়িতে যাকেই পাওয়া গেছে তাকেই আহত করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে সালেহ উদ্দিনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছে কর্তব্যরত ডাক্তার দিশা। খবর পেয়ে নকলা থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ ব্যাপারে নকলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুশফিকুর রহমান দুই পরিবারের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। সম্প্রতি আদালত মোন্তাজ গংদের ওই জমিতে প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা দেয়। ঘটনার সময় অভিযুক্তরা জমিতে প্রবেশ করতে গেলে এই সংঘর্ষ হয়।

ওই সংঘর্ষে বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়ার পক্ষে ১০ জন এবং মোন্তাজ গংদের ৬ জন আহত হয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে তিনি জানান। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।