সম্পর্কের অবস্থা প্রকাশ করে ঘুমানোর ভঙ্গি

প্রকাশিত

চলন, বলন ও আচরণ থেকে ব্যক্তিত্ব সম্পর্ক জানা যায়। একইভাবে ঘুমানোর ধরন থেকেও ভালোবাসার জীবন সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

মানসিক স্বাস্থ্য-বিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে ঘুমানোর ধরনের সঙ্গে দাম্পত্য জীবনের মিল সম্পর্কে জানা যায়। অনেক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ ও মনোবিজ্ঞানীরাও এই গবেষণার সঙ্গে সম্মতি প্রকাশ করেছেন।

স্পুনিং বা পেছন থেকে আকড়ে ধরে ঘুমানো

দেখতে বেশ মধুর ও রোমান্টিক মনে হলেও এই শোয়ার ভঙ্গিতে একজন সঙ্গীর অন্যজনের প্রতি রক্ষণশীলতা প্রকাশ করে। দেহভঙ্গি বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এটা বেশ আবেদনময় এবং সঙ্গীর মাঝে বিশ্বস্ততার ঘাটতি নির্দেশ করে।

শরীরের স্পর্শ ছাড়াই দুজন দুদিকে ফিরে ঘুমান

যদি দুজন দুদিকে মুখ দিয়ে পিঠাপিঠি হয়ে ঘুমান এবং শরীরের কোনো স্পর্শ না থাকে তাহলে সেটা সবচেয়ে ভালো। যেসব দম্পতি বিপরীত দিকে মুখ করে ঘুমায় তারা নিজেদের সম্পর্ক নিয়ে অনেক বেশি নিরাপদ অনুভব করেন। এর মধ্য দিয়ে বোঝা যায় যে তারা একে অপরের ব্যক্তি স্বাধীনতাকে সম্মান জানায়।

শরীর স্পর্শ করে দুজন দুদিকে ফিরে ঘুমানো

দুজন দুদিকে ফিরে ঘুমান ঠিকই তবে পিঠ বা নিতম্ব স্পর্শ করে থাকে। গবেষকদের মতে, এ থেকে বোঝা যায়-  একে অপরের সঙ্গে স্বস্তি বা আরাম অনুভব করেন। নতুন দম্পতিদের মধ্য এই ভঙ্গিতে ঘুমানোর প্রবণতা বেশি দেখা যায়। যারা অনেক বছর এক সঙ্গে আছেন তাদের তুলনায় এক বছরের কম সময় একসঙ্গে আছে এমন দম্পতিদের মধ্য এটা বেশ সাধারণ।

দ্যা স্পেস হোগার বা বেশি জায়গা নিয়ে ঘুমানোর প্রবণতা

দম্পতিদের মধ্যে যদি একজন বিছানার বেশিরভাগ জায়গা জুড়ে থাকেন এবং অন্যজন ঘুমানোর জন্য পর্যাপ্ত জায়গা না পান, সেটা মোটেও ভালো লক্ষণ নয়। এর মধ্য দিয়ে বোঝা যায় সম্পর্কে একটা রুক্ষ অবস্থার ভেতর দিয়ে যাচ্ছে এবং একজন অতিরিক্ত প্রভাব খাটাচ্ছে।

হাত পা জড়িয়ে ঘুমানো

যদি একে অপরের হাত পা জড়িয়ে ঘুমায়, তবে একে অপরের প্রতি নির্ভরশীল এবং একে অপরের সঙ্গে অনেক বেশি আঁকড়ে আছেন বোঝায়। এই ভঙ্গি থেকে বোঝা যায়, তারা একে অপরকে পর্যাপ্ত ভাবে পায় না এবং তারা একসঙ্গে ছোটখাটো যে কোনো কাজ করতেও পছন্দ করেন।

বুকে মাথা রেখে ঘুমানো

সঙ্গীর মধ্যে কেউ একজন যদি অন্যজনের বুকে মাথা রেখে ঘুমায়- তাহলে তারা অনেক আত্মবিশ্বাসী। আরও বোঝা যায় যে, তারা একে অপরের প্রতি যত্নশীল। আর এই ভঙ্গি নতুন সম্পর্কের ক্ষেত্রে বেশি দেখা যায়।

ছবি: রয়টার্স।