সাগরিকায় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড শ্রীলঙ্কার

প্রকাশিত

স্পোর্টস রিপোর্টার: সাগরিকার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টেস্ট ক্রিকেটের এক ইনিংসে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়লো সফরকারী শ্রীলঙ্কা। স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ৯ উইকেটে ৭১৩ রানে নিজেদের প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে লঙ্কানরা। জহুর আহমেদে এটিই যে কোনো দলের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। এর আগে ২০১০ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৬ উইকেট হারিয়ে ৫৯৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছিল ইংল্যান্ড। এতদিন সেটিই ছিল সাগরিকার সর্বোচ্চ স্কোর। ভেন্যুর সর্বোচ্চ রেকর্ডের পাশাপাশি দলীয় রানের রেকর্ডও এখানেই হয়েছে। বাংলাদেশের বিপক্ষে এটি তাদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৭৩০ রান। যা এসেছিল ২০১৪ সালে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। সাদা পোশাকে সবমিলিয়ে শ্রীলঙ্কার এই ম্যাচের ৯ উইকেটে ৭১৩ রান রেকর্ড বইয়ে ১৮তম স্থানে রয়েছে। এই ফরম্যাটে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও তাদের।
বাংলাদেশের বিপক্ষে যত বড় সংগ্রহ
টেস্টে বাংলাদেশ সব মিলিয়ে ছুঁয়েছে সাতবার পাঁচশোর ঘর । চলমান চট্টগ্রাম টেস্টেই এসেছে যার শেষটি। সাদা পোশাকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৬৩৮ রান। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই গলে সে রেকর্ড গড়েছিল টাইগাররা। অদ্ভুতভাবে বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বোচ্চ স্কোরের প্রথম দুই রেকর্ড এই শ্রীলঙ্কা দলেরই। চন্ডিকা হাথুরুসিংহের দলের দুটো স্কোরই সাতশো’র ঘর ছাড়িয়ে। ২০১৪ সালে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কা দলের সংগ্রহ ছিল ৭৩০ রান। মাহেলা জয়াবর্ধনের দ্বিশতকে ভর করে গড়া সে স্কোরটাই বাংলাদেশের বিপক্ষে সর্বোচ্চ সংগ্রহের একদম চূড়ায়। লঙ্কান দলের এবারের ইনিংসটা আস্তে আস্তে এগোচ্ছিল আগের রেকর্ডটা ভেঙ্গে দেয়ার দিকেই। অবশ্য ইনিংস ঘোষণা হয়ে যাওয়ায় তেমনটি আর হয়নি।
চট্টগ্রামে চলমান টেস্টের প্রথম ইনিংসে এবার দলটির পুঁজি ৭১৩ রান। গত বছর ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ ভারত সফরে গিয়েছিল। হায়দরাবাদে একমাত্র টেস্টে হতাশ হয়েই ফিরতে হয়েছিল তাদের। ২০৮ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছিল তারা। সে ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ভারতের গড়েছিল সাতশো ছুঁই ছুঁই স্কোরও। ছয় উইকেটে ৬৮৭ রান করে সেদিন ভারত ঘোষণা করেছিল নিজেদের ইনিংস।
পাঁচদিনের ক্রিকেটে টাইগারদের বিপক্ষে তৃতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ এটাই।
শুধু বাংলাদেশের বিপক্ষেই নয়, শ্রীলঙ্কা রয়েছে গোটা টেস্ট ক্রিকেটেই সর্বোচ্চ সংগ্রহ গড়ার শীর্ষস্থানটাতে। ১৯৯৭ সালে ভারতের বিপক্ষে কলম্বোতে স্বাগতিকরা স্কোরবোর্ডে তুলেছিল ৬ উইকেট হারিয়ে ৯৫২ রান। ইনিংসটা ঘোষণা না করলে তা হয়তো ছাড়িয়ে যেতো ১০০০ রানের ঘরও !
১৯৩৮ সালে ইংল্যান্ডের করা ৭ উইকেটে ৯০৩ রান সংগ্রহের রেকর্ডটা ৫৯ বছর পর ভেঙ্গেছিল কলম্বোর সেই টেস্টে। সবচেয়ে বেশি দলীয় সংগ্রহ গড়ার তালিকায় তৃতীয় স্থানেও রয়েছে ইংল্যান্ড।
কিংস্টনে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৯৩০ সালে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ইংল্যান্ড করেছিল ৮৪৯ রান।
বাংলাদেশের বিপক্ষে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ সংগ্রহ
১. শ্রীলঙ্কা ৭৩০/৬ (ইনিংস ঘোষণা)
২. শ্রীলঙ্কা ৭১৩/৯ (ইনিংস ঘোষণা)
৩. ভারত ৬৮৭/৬ (ইনিংস ঘোষণা)
৪. ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৬৪৮/৯ (ইনিংস ঘোষণা)
৫. পাকিস্তান ৬২৮ ।