সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধির উপর দায় চাপিয়ে সচল বাংলাদেশ !

প্রকাশিত

তুহিন সারোয়ার-

বাংলাদেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯,৫৩৪ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬৭২ জনের। সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ১০,৫৯৭ জন।

বাড়তে বাড়তে ৫০ হাজারের দোড়গোড়ায় পৌঁছে গেল বাংলাদেশে করোনাভাইসে আক্রান্তের সংখ্যা। সেইসঙ্গে মৃত্যু মিছিলও ক্রমশ দীর্ঘ হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবিলা আক্রান্তের সংখ্যার ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন এলাকাকে রেড, গ্রিন, ইয়েলো জোনে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।
সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২,৩৮১ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯,৫৩৪ জন। এদিকে, দেশজুড়ে এই মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছেন আরও ২২ জন। যার ফলে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৭২ জন। বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন আরও ৮১৬ জন। ফলে করোনাকে জয় করে এখনও পর্যন্ত মোট ১০,৫৯৭ জন হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরলেন।

লকডাউন প্রত্যাহারের ফলে সচল জনজীবন। সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে কিছু মানুষের বেপরোয়া মনোভাবে সেদেশের করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে বলে অভিযোগ। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আক্রান্তের সংখ্যার ভিত্তিতে দেশের বিভিন্ন এলাকাকে তিনটি জোনে ভাগ করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এসব জোনের নাম হবে ‘রেড জোন’, ‘ইয়েলো জোন’ ও ‘গ্রিন জোন’। সূত্রের খবর, যে সমস্ত এলাকায় আক্রান্তের হার সর্বাধিক সেগুলিকে রেড জোন হিসেবে ঘোষণা করা হবে। এদিন সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে উচ্চ পর্যায়ের এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়। কিভাবে জোন চিহ্নিত করা হবে বা কোন জোনের ক্ষেত্রে কী ধরনের নিয়ম কার্যকর হবে, সেই বিষয়ে এখনও স্পষ্টভাবে কিছু জানা যায়নি।