সারাদেশে করোনা আইসিইউ ৩৭৪টি, খালি ১৬৪টি

প্রকাশিত

করোনায় আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের প্রয়োজন হয় নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ)। দেশে করোনা রোগীদের জন্য বরাদ্দ আছে মোট ৩৭৪টি আইসিইউ শয্যা। তার মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগে বরাদ্দ দেয়া ১৮১টি। বাকি ছয় বিভাগের জন্য বরাদ্দ ১৯৩টি আইসিইউ। যদিও অন্যান্য বিভাগে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু বাড়ছে দিন দিন।

রোববার (১২ জুলাই) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানার তুলে ধরা তথ্য থেকে এসব জানা যায়।

নাসিমা সুলতানা বলেন, ‘সারাদেশে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ১৪ হাজার ৬৬৪টি, রোগী ভর্তি আছে চার হাজার ২৫৪ জন এবং খালি আছে ১০ হাজার ৪১০টি শয্যা। সারাদেশে আইসিইউ শয্যা ৩৭৪টি, রোগী ভর্তি আছে ২১০ জন এবং খালি আছে ১৬৪টি শয্যা।’

তিনি আরও জানান, ঢাকা মহানগরীতে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা দুই হাজার ১০৩ জন। সাধারণ শয্যা খালি আছে চার হাজার ২০২টি। ঢাকা মহানগরীর আইসিইউতে রোগী ভর্তি আছেন ১০৩ জন এবং খালি ৩৯টি।

চট্টগ্রাম মহানগরীতে সাধারণ শয্যায় রোগী ভর্তি আছেন ৩১৩ জন, খালি আছে ৩৪৪টি। চট্টগ্রাম মহাগরীর আইসিইউ শয্যায় ২০ জন রোগী ভর্তি আছে এবং খালি আছে ১৯টি।

সারাদেশে অন্যান্য হাসপাতালে রোগী ভর্তি আছে এক হাজার ৮৩৮ জন এবং খালি আছে পাঁচ হাজার ৮৬৪টি শয্যা। আইসিইউতে সারাদেশের অন্যান্য হাসপাতালে ৮৭ জন ভর্তি আছে, খালি আছে ১০৬টি আইসিইউ শয্যা।

২৪ ঘণ্টার হালনাগাদ তথ্য তুলে ধরে নাসিমা সুলতানা আরও জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১ হাজার ২১০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার ৫৯টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নয় লাখ ৪০ হাজার ৫২৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হলো।

নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে আরও দুই হাজার ৬৬৬ জনের মধ্যে। ফলে শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল এক লাখ ৮৩ হাজার ৯৭৫ জনে।

আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন আরও ৪৭ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে দুই হাজার ৩৫২ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও পাঁচ হাজার ৫৮০ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৯৩ হাজার ৬১৪ জনে।