সায়েন্সল্যাবে ট্রাফিক পুলিশের মোটরসাইকেলে আগুন

প্রকাশিত

সিক্স প্রতিবেদক : শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের মধ্যে রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখতে চাওয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি ও দুর্ব্যবহারের জেরে এক ট্রাফিক পুলিশের মোটরসাইকেল আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরের এই ঘটনায় তাকে মারধরও করা হয়।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বায়েজিদ নামের ওই ট্রাফিক সার্জেন্ট মোটরসাইকেলে করে সায়েন্স ল্যাবরেটরি সিগন্যালে এলে শিক্ষার্থীরা তাকে থামিয়ে লাইসেন্স দেখতে চায়। এই সময় সার্জেন্ট বায়েজিদ উত্তেজিত হয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। এর এক পর্যায়ে তাকে মারধর করা হয়। আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থী জানান, ওই সার্জেন্ট শিক্ষার্থীদের সহযোগিতা না করে কয়েকজনের গায়ে হাত তোলেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে মারধর করেন কয়েক শিক্ষার্থী। তবে অন্য শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে সায়েন্স ল্যাবরেটরি পুলিশ বক্সে নিয়ে যায়। সেখান থেকে শিক্ষার্থীরাই তাকে পপুলার হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যায়।

এদিকে, শিক্ষার্থীদের ওপরে হাত তোলার খবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত হয়ে ওঠে আন্দোলনকারীরা। এ সময় তারা দু’টি বাস ভাঙচুর করে এবং সার্জেন্ট বায়েজিদের সরকারি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলায় বিমানবন্দর সড়কে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের ওপর উঠে পড়ে জাবালে নূর পরিবহনের একটি বেপরোয়া বাস। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় শহীদ রমিজউদ্দীন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম ওরফে রাজীব (১৭) এবং একই কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম (১৬)।

এ ঘটনার বিচারসহ ৯ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা রোববার থেকেই রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সড়কে অবস্থান নিয়ে আন্দোলন করছে। আজ বৃহস্পতিবারও এ আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে।