সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় অবৈধভাবে মাছ শিকার, আটক ৪০

প্রকাশিত
ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ) সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় ইজারাকৃত দুইটি জলমহালে জোর-পূর্বক পলো দিয়ে অবৈধভাবে মাছ শিকার করার দায়ে ৪১ জন মাছ শিকারীকে আটক করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার চাদরা ও ডুবাইল নামক ইজারাকৃত ওই দুইটি জলমহালে নেমে পলো দিয়ে অবৈধভাবে মাছ শিকারের সময় তাদেরকে আটক করা হয় ।
এব্যাপারে ওই রাত ১২ টার দিকে ডুবাইল নামক জলমহালের ম্যানেজার বিপ্লব মিয়া বাদি হয়ে আটক ৪০ জনকে আসামি করে ধর্মপাশা থানায় একটি লুট-পাটের মামলা দায়ের করেছেন।
আটককৃত পলো শিকারীরা হলেন, আজিজুল হক (৩৫), মঞ্জু খাঁ (৩৪), সোহেল মিয়া (৩২), রাসেল মিয়া (১৮), বোরহান উদ্দিন (৩২) ও রিপন মিয়া (১৮), ইসলাম উদ্দিন (৪০), শামীম রানা (১৯), মোখলেছুর রহমান (৪৫), আব্দল জব্বার (৪৫), শহীদ মিয়া (৪০), ইদ্্িরস মিয়া (২৬), ফরহাদ মিয়া (২০), শাকীল মিযা (১৮), উজ্জল মিয়া (১৫), গিয়াস উদ্দিন (৪০), কালা মিয়া (৪৫), খোকন মিয়া (৪০) সহ ৪১ জন। তারা সবাই ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা, নেত্রকোনা জেলা সদরসহ পূর্বধলা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দা বলে পুলিশ জানিয়েছে।
পুলিশ ও জলমহাল সূত্রে জানা গেছে, গত প্রায় ১ সপ্তাহ আগে থেকে পলো দিয়ে মাছ শিকারের জন্য পাশের ময়মনসিংহ, গৌরীপুর ,নেত্রকোনা ও পুর্বধলা এলাকার বিভিন্ন গ্রামে মাইকিং করে ওইসব এলাকার পলো শিকারীদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। পরে তাঁরা পলোসহ মাছ ধরার সরঞ্জামাধি নিয়ে বৃহস্পতিবার ভোর রাতে নিজ-নিজ এলাকা থেকে প্রায় দুই শতাধিক লেগুনা, সিএনজি ও মোটর সাইকেল যোগে প্রায় ১ হাজার লোক রওয়ানা দিয়ে তারা বৃহস্পতিবার বিকেলে সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার চাদরা ও ডুবাইল নামক ইজারাকৃত দুইটি জলমহালে একযোগে আকস্মিকভাবে নেমে তারা মাছ শিকার করতে থাকেন। এ সময় জলমহালের দায়িত্বে থাকা ইজারাদারের লোকজনদের নিষেধাজ্ঞাকে অমান্য করেই তারা ওই দুইটি জলমহাল থেকে প্রায় অর্ধ্ব কোটি টাকার মাছ পলো দিয়ে শিকার করে নিয়ে যান। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ওই দিন সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল থেকে ৪০ জন পলো শিকারীকে পলোসহ আটক করতে পারলেও এসময় অন্যান্যরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।
ধর্মপাশা থানার ওসি সুরঞ্জিত তালুকদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,  খবর পেয়ে আমরা সেখান থেকে ৪০ জনকে আটক করা হয়েছে। ওই রাতেই এ ব্যাপারে ৪০ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়েরের পর  শুক্রবার বিকেলে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।