সেই ইভান্সের ব্যাটে বিপিএলের প্রথম সেঞ্চুরি

প্রকাশিত

ক্রীড়া প্রতিবেদক :প্রথম ম্যাচে করেছিলেন ১০ রান। পরের চার ম্যাচে দুই অঙ্কেই যেতে পারেননি। পাঁচ ম্যাচে সাকুল্যে রান মাত্র ১৩। সেই লরি ইভান্স আজ শুধু জ্বলেই উঠলেন না, বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে প্রথম সেঞ্চুরির দেখা মিলল তার ব্যাট থেকেই!

মিরপুরে আজ রাজশাহী কিংসের হয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছেন ইভান্স।৩১ বছর বয়সি ব্যাটসম্যান মাত্র ৬২ বলে ৯ চার ও ৬ ছক্কায় খেলেছেন অপরাজিত ১০৪ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস।

মুখোমুখি প্রথম ১৪ বলে ইভান্স করেছিলেন মাত্র ৯ রান। রাজশাহী অবশ্য ততক্ষণে হারিয়ে ফেলেছে ২ উইকেট। ষষ্ঠ ওভারে শহীদ আফ্রিদিকে তিন চার হাঁকিয়ে শুরু ইভান্সের ঝড়।ইংলিশ ডানহাতি ব্যাটসম্যান ১৪তম ওভারে থিসারা পেরেরাকে দুই ছক্কা হাঁকানোর পথে ফিফটি তুলে নেন ৪০ বলে।

পরের পঞ্চাশ রান করতে ইভান্সের লেগেছে মাত্র ২১ বল! আগের ওভারে পাকিস্তানি পেসার ওয়াহাব রিয়াজকে দুই ছক্কা ও এক চারে ৮৩ থেকে পৌঁছে গিয়েছিলেন ৯৯-এ। শেষ ওভারে থিসারাকে লং অফে ঠেলে সিঙ্গেল নিয়ে ছুঁয়ে ফেলেন তিন অঙ্ক।

 

২৩তম ম্যাচে এসে এবারের বিপিএল দেখল প্রথম সেঞ্চুরি। সিলেট পর্বে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে সিলেট সিক্সার্সের সাব্বির রহমানের ৮৫ ছিল আগের সর্বোচ্চ। ইভান্সের ক্যারিয়ারেরও প্রথম টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরি এটি। আর বিপিএলের ইতিহাসে ১৩তম সেঞ্চুরি।

গত বছর ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ইভান্স। সাসেক্সের হয়ে ১৫ ম্যাচে ৬৮.২২ গড়ে করেছিলেন ৬১৪ রান। কিন্তু বিপিএলে শুরুতে রান পাচ্ছিলেন না। অবশেষে তিনি রাজশাহীকে বড় ইনিংস উপহার দিলেন।

ইভান্সের সেঞ্চুরির পাশাপাশি এদিন ফিফটি করেছেন রায়ান টেন ডেসকাট। ৪১ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৫৯ রানে অপরাজিত ছিলেন এই ডাচ ব্যাটসম্যান। ২৮ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর চতুর্থ উইকেটে এই দুজনের ৮৩ বলে অবিচ্ছিন্ন ১৪৮ রানের জুটিতে ২০ ওভারে ১৭৬ রানের পুঁজি পেয়েছে রাজশাহী।

বিপিএলে চতুর্থ উইকেটে এটি সর্বোচ্চ রানের জুটির নতুন রেকর্ড। ইভান্স ও ডেসটাট ছাড়িয়ে গেছেন ২০১৫ বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে কুমিল্লার মারলন স্যামুয়েলস ও মাশরাফি বিন মুর্তজা জুটির ১২৩ রানকে।