সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় আসামি মামুনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত
স্টাফ রিপোর্টার: সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় আসামি সাইফুল ইসলাম মামুনের করা আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।
রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ আবেদন খারিজ করে এই আদেশ দেন।
মামুনের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন আইনজীবী কাজী আখতার হামিদ। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।
সাইফুল ইসলামের আইনজীবী কাজী আখতার হামিদ বলেন, আসামির পক্ষে আইনি লড়াইয়ের সকল ধাপ শেষ হয়েছে। এখন রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাওয়ার সুযোগ রয়েছে সাইফুলের।
এর আগে ২০১৭ সালের ১ নভেম্বর সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় হাইকোর্টের রায় বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। রায়ে আসামি সাইফুল ইসলাম মামুনের মৃত্যুদণ্ড এবং আল আমিন, আকবর আলী লালু ও রফিকুল ইসলাম খোকনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল রাখা হয়। পরে এই রায়ের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মামুন রিভিউ আবেদন করেন।
২০১২ সালের ৫ মার্চ গুলশানে গুলিবিদ্ধ হন খালাফ আল আলী। পরদিন ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। খালাফ হত্যার ঘটনায় ওই বছরের ৭ মার্চ গুলশান থানায় মামলা করে পুলিশ। একই বছরের ৩০ ডিসেম্বর ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এই মামলার রায়ে পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন।
ওই রায়ের পর আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের (ডেথ রেফারেন্স) জন্য হাইকোর্টে আসে। এবং রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা হাইকোর্টে আপিল করেন। এরপর ২০১৩ সালের ১৮ নভেম্বর হাইকোর্ট রায় দেন।
হাইকোর্টের রায়ে আসামি সাইফুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকে। বাকি তিনজনকে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। খালাস পান অপর আসামি সেলিম চৌধুরী ওরফে সেলিম আহম্মেদ।