হাটহাজারীতে অজ্ঞাত রোগে ৪ শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে অজ্ঞাত রোগে চার শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে একই পরিবারের তিন শিশু রয়েছে।

উপজেলার ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকার ত্রিপুরা পল্লীতে গত ছয় দিনে এ চার শিশু মারা যায়।

নিহত চার শিশু হলো- অন্ন বালা (৭), অন্ন রায় ত্রিপুরা (৪), সৌম্য রায় ত্রিপুরা (২) ও কিশা মনি ত্রিপুরা (৪)। এদের মধ্যে অন্ন বালা রোববার (২৬ আগস্ট) সকাল ৭টায় মারা যায়। তবে গত মঙ্গলবার (২১ আগস্ট) অন্ন রায় ও কিশা মনি মারা যায়। ২৪ আগস্ট মারা যায় সৌম্য।

একই পল্লীতে আরও কমপক্ষে ২২ শিশু এ রোগে আক্রান্ত হয়েছে। এ ঘটনায় ত্রিপুরা পল্লীতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। দুর্গম ওই এলাকায় সমতল থেকে চার কিলোমিটারেরও বেশি পথ হেঁটে যেতে হয়।

রোববার সকালে খবর পেয়ে হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আবু সৈয়দ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ উদ্দিন ত্রিপুরা পল্লীতে যান। এরপর অসুস্থ ২২ শিশুকে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করেন।

ডা. আবু সৈয়দ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ উদ্দিন জানান, অজ্ঞাত ভাইরাসে শিশুদের মৃত্যু হয়েছে। প্রতিটি শিশুই প্রথমে মারাত্মক জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর মারা যাচ্ছে। অসুস্থ কয়েকজনের জ্বর অনেক বেশি। কারও কারও হালকা জ্বরের সঙ্গে খিঁচুনি, সর্দি ও শ্বাসকষ্ট রয়েছে।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী জাগো নিউজকে জানান, রোগ এখনও শনাক্ত করা যায়নি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একজন প্রতিনিধিসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। গুরুতর অসুস্থ তিন শিশুসহ পাঁচ শিশুর রক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় জনস্বাস্থ্য বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১২ জুলাই সীতাকুণ্ডের সোনাইছড়ি বারো আউলিয়া ত্রিপুরা পল্লীতে অজ্ঞাত রোগে এক সপ্তাহে ৯ শিশুর মৃত্যু হয়।