হাতিরঝিলে নেই চিরচেনা ভিড়

প্রকাশিত

করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ‌্যে উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা। করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় অনেকেই বিনোদনকেন্দ্রে যাচ্ছেন না। ফলে, রাজধানীর হাতিরঝিলসহ অন‌্যান‌্য বিনোদনকেন্দ্রে নেই চিরচেনা ভিড়

বুধবার (২১ জুলাই) ঈদুল আজহার দিনে হাতিরঝিলে ঘুরে দেখা গেছে, সেখানে খুব অল্প সংখ্যক মানুষ ঘুরতে এসেছেন। করোনা প্রাদুর্ভাবের আগে ঈদের দিনে যেভাবে মানুষ দল বেঁধে ঘুরতে আসতেন হাতিরঝিলে, সে তুলনায় এবার একেবারেই বিপরীত চিত্র

ছোট দুই ছেলে-মেয়েকে নিয়ে হাতিরঝিলে ঘুরতে এসেছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মাহবুব জামান। নিজের ইচ্ছা না থাকলেও সন্তানদের বায়না মেটাতে একপ্রকার বাধ্য হয়েই সেখানে এসেছেন।

তিনি জানান, যখন স্বাভাবিক পরিস্থিতি ছিল, তিনি বিশেষ দিনগুলোতে পরিবার নিয়ে ঘুরতে বের হতেন। কিন্তু, এখন করোনার কারণে বাসা থেকেও খুব একটা বের হন না। কিন্তু সন্তানরা তো অবুঝ। তাদের ঘরের মধ্যে থাকতে ভালো লাগে না। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুই সন্তানকে নিয়ে ঘুরতে বের হয়েছেন।

দুই বন্ধু অনিক আর জারিফ হাতিরঝিলে ঘুরতে এসে মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করছেন একের পর এক ভিডিও। পরে জানা গেলো তারা টিকটক ভিডিও বানাচ্ছেন। ঘোরাফেরা পছন্দ এই দুই বন্ধুর। করোনা নিয়ে কোনো ভয়-ডর নেই। মাস্কও পরেননি তারা।

বিনোদপ্রেমী বাঙালিদের জন‌্য ঈদ উদযাপনের অন্যতম অনুষঙ্গ ঘুরতে বের হওয়া। কিন্তু গত তিনটি ঈদে ঘুরতে পারেননি বেশিরভাগ মানুষ। এবার ঈদের দিন বুধবারও ১৭৩ জনের মৃত‌্যুর দুঃসংবাদ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। শুধু ঈদ উদযাপনের জন্য লকডাউন কয়েক দিনের জন‌্য শিথিল করেছে সরকার। শুক্রবার থেকে আবার শুরু হতে যাচ্ছে কঠোর লকডাউন। করোনা পরিস্থিতি মানুষের মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। এর প্রভাব পড়েছে ঈদ উদযাপনের ক্ষেত্রেও।

রাজধানীর অন্যান্য বিনোদনকেন্দ্রের তুলনায় হাতিরঝিলে একটু বেশিই ঘুরতে আসতেন মানুষজন। খোলামেলা জায়গা, সবুজের সমারোহ, বিশাল লেক মিলে হাতিরঝিল অন‌্যতম সেরা বিনোদনকেন্দ্র। তবে, করোনা মহামারির কারণে ঈদেও ঘোরাঘুরি করা থেকে বিরত থাকছেন নগরবাসী