অভিনেত্রী নওশাবার মামলা হাইকোর্টে স্থগিত

প্রকাশিত

অনলাইন ডেস্ক-সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তথ্য প্রযুক্তি আইনে অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদের বিরুদ্ধে করা মামলার কার্যক্রম ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।
মামলা বাতিল চেয়ে নওশাবার করা এক আবেদনের শুনানি নিয়ে বুধবার বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।
রুলে ওই মামলা কেন বাতিল করা হবে না, তা চার সপ্তাহের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষের কাছে জানতে চেয়েছেন আদালত।
এদিন, আবেদনের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিনুর রহমান চৌধুরী টিকু।
পরে জ্যোর্তিময় বড়ুয়া সাংবাদিকদের বলেন, ২০১৮ সালের ৫ অগাস্ট তথ্য প্রযুক্তি আইনে নওশাবার বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করা হলেও ওই বছরের ৮ অক্টোবর এই আইন বিলুপ্ত করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার্যকর করা হয়।

তিনি আরও বলেন, নতুন আইনের ৬১ ধারা মতে, তথ্য প্রযুক্তি আইনের কোনো মামলা বিচারাধীন থাকলে তা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে চলমান থাকবে। কিন্তু এ মামলার অভিযোগপত্র দেওয়া হয় চলতি বছরের ৩০ এপ্রিল। আর অভিযোগ আমলে নেওয়া হয় ৩ সেপ্টেম্বর। তাই এ মামলার কার্যক্রম অবৈধ। এ কারণে মামলা বাতিল চেয়ে আবেদন করা হয়েছিল। এরপর আদালত ৬ মাসের স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছে।
নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন চলাকালে ২০১৮ সালের ৪ আগস্ট ফেসবুক লাইভে গুজব সৃষ্টির অভিযোগে উত্তরা থেকে নওশাবা আহমেদকে আটক করে র‍্যাব। পরদিন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় নওশাবার বিরুদ্ধে মামলা করে সেই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। পরবর্তীতে তাকে দু’দফা রিমান্ডে নেওয়া হয়। এরপর ২০১৮ সালের ২১ আগস্ট পাঁচ হাজার টাকা মুচলেকায় নওশাবা সিএমএম আদালতের দেওয়া জামিনে মুক্তি পান।