কুমিল্লা মুরাদনগরে চতুর্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার। ঘাতক ২ ধর্ষক আটক।

প্রকাশিত

কুমিল্লা প্রতিনিধি :

কুমিল্লার মুরাদনগর যাত্রাপুর গ্রামের এক ৪র্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী (১০) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় ঘাতক ২ ধর্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় ভূক্তভোগী শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দিবাগত রাতে মুরাদনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।ড়

আটককৃতরা হচ্ছেন, উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামের পার্থ দেবনাথ (১৫) স্বপন দেবনাথের ছেলে ও একই গ্রামের স্বর্ণ দেবনাথ (১৭) নরেন্দ্র দেবনাথের

সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামের নাথ মন্দির এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে বলে জানা যায়।

ঘটনা সুত্রে জানা যায়, কুমিল্লা মুরাদনগরের যাত্রাপুর এলাকায় সোমবার দিবাগত রাতে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ওই শিক্ষার্থী তার দাদীর সাথে গ্রামের নাথ মন্দিরে রাস লিলা অনুষ্ঠান দেখতে যায়। অনুষ্ঠান দেখার এক ফাকে ওই শিক্ষার্থীকে পাশের বাড়ীর পার্থ দেবনাথ ও স্বর্ণ দেবনাথ খেলার ছলে কৌশলে পার্থ দেবনাথের অতিথি থাকার ঘরে নিয়ে গিয়ে প্রথমে পার্থ দেবনাথ ও পরে স্বর্ণ দেবনাথ ধর্ষণ করে। বিষয়টি কারো কাছে প্রকাশ করলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে মন্দিরে দিয়ে আসে। অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার আগেই ওই শিক্ষার্থী বাড়ী ফিরে পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলা, সমবয়সীদের খেলাধুলা বন্ধ করে দেয়। এতে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হলে বৃহস্পতিবার দুপুরে তার মা কথা না বলার কারণ জানতে চাইলে শিশুটি ধর্ষণের কথাটি স্বীকার করে। এ বিষয়ে পার্থ দেবনাথ ও স্বর্ণ দেবনাথের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করে শুক্রবার

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মনজুর আলম জানান, এঘটনায় শিশুটির পরিবার পার্থ দেবনাথ ও স্বর্ণ দেবনাথের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করার পর ওইদিন রাতেই অভিযান চালিয়ে আটক করা হয়।

আটককৃত আসামিদেরকে শুক্রবার দুপুরে কুমিল্লা আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ আদালত তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করার নির্দেশ দেন বলে তিনি জানান।