দালাল নির্মুলে কুমিল্লা বিআরটিএ অফিসে জেলা প্রশাসন ও র‌্যাবের অভিযান

প্রকাশিত

কুমিল্লা প্রতিনিধি-
কুমিল্লা জেলা প্রশাসন ও কুমিল্লা র‌্যাব-১১,সিপিসি-২ সদস্যরা কুমিল্লা বিআরটিএ অফিসে দালাল চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করেছে। অভিযানে বিভিন্ন অভিযোগে ৮ জনকে জরিমানাসহ ২ জনকে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ১ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকা জরিমানা করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
মঙ্গলবার (১০ই ডিসেম্বর) দুপুরে কুমিল্লার বিআরটিএ অফিসে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে এক মাসের সাজাপ্রাপ্তসহ জরিমানার দালালরা হলেন, মোঃ লিটন মিয়া (১ মাসের জেলসহ ৪৫ হাজার টাকা), অলোক কুমার সাহা (১ মাসের জেলসহ ২০ হাজার টাকা জরিমানা)। জরিমানাপ্রাপ্ত অন্য আসামীরা হলেন, মোঃ শহিদুল ইসলাম (১০ হাজার টাকা জরিমানা), মোঃ হাজী আনোয়ার (২ হাজার টাকা জরিমানা), মোঃ জয়নাল আবেদীন (২ হাজার টাকা জরিমানা), এইচ এম হোসাইন (৫ হাজার টাকা জরিমানা), মোঃ আল-আমীন (২ হাজার টাকা জরিমানা) এবং মোঃ মাহবুবুর রহমানকে (৫০ হাজার টাকা জরিমানা) করা হয়।
অভিযান পরিচালনা করেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবু সাঈদ, তাসলিমা শিরিন, মাহফুজা মতিন, এস.এম.মুস্তাফিজুর রহমান, মাহমুদুল হাসান রাসেল, নাছরিন সুলতানা, শুভাশিষ ঘোষ এবং কুমিল্লা র‌্যাব ১১ সিপিসি ২ এর কোম্পানী কমান্ডার মেজর: তালুকদার নাজমুছ সাকিব, সহকারী কোম্পানী কমান্ডার এএসপি মোঃ মহিতুল ইসলাম । এ সময় বিআরটি অফিসের উপ-পরিদর্শক মোঃ আব্দুল বারী উপস্থিত ছিলেন।
র‌্যাব ১১ সিপিসি-২ সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুমিল্লা জেলা প্রশাসক ও র‌্যাবের সহায়তায় দালালদের আটক করা হয়। তারা দীর্ঘদিন যাবত নকল স্ট্রাম্পসহ বিভিন্ন ধরনের ভূয়া সীল ও ভূয়া কাগজপত্র তৈরি এবং সাধারণ জনগনের সাথে প্রতারণামূলক জালিয়াতি কাজ করে আসছে।
দালাল চক্রের লোকেরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের আশেপাশে ছোট ছোট দোকান গড়ে তুলেছে। নকল স্ট্রাম্প বিক্রির পাশাপাশি নানা ধরনের জালিয়াতি করাই তাদের মূল পেশা। সমাজের সাধারণ জনগণ তাদের দ্বারাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ক্ষমতাবান লোকদের সহযোগিতায় তারা এ ধরনের ন্যাক্কারজনক কাজ করে আসছে। দালালি ও ভূয়া কাগজপত্র বিক্রি করে জনগণকে তারা দীর্ঘ দিন হয়রানি করে আসছে।
জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ম্যাজিস্ট্রেট ও র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডারের সাথে কথা বললে তারা জানান, কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে দালালের দৌরাতœ, দুর্নীতি, অনিয়ম, হয়রানি রোধে এমন অভিযান অব্যহত থাকবে।