জাতীয় চার নেতাকে হত্যাকরে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ভূলুন্ঠিত করেছে-শিক্ষা উপমন্ত্রী

প্রকাশিত

ওসমান ফারুক চট্টগ্রাম‌‌‌-

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন, মুক্তিযোদ্ধারা হয়তো একদিন থাকবে না। কিন্তু বিজয় মেলার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও লাল সবুজের পতাকা নতুন প্রজন্মের হাতে তুলে দিতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী অপশক্তি পূর্বেও ছিল, এখনও আছে। তারা জাতির জনক ও জাতীয় চার নেতাকে হত্যাকরে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ভূলুন্ঠিত করেছে।
শিক্ষা উপমন্ত্রী গতকাল নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে মুক্তিযুদ্ধের বিজয়,বীর বাঙ্গালির অহংকার ‘বিজয় শিখা প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন শেষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন।
অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহাতাব উদ্দিন চৌধুরী, সহ সভাপতি আলতাফ হোসেন চৌধুরী, মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড.সিকান্দর চৌধুরী, মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুচ, কো-চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম, জাহাঙ্গীর চৌধুরী, মহিউদ্দিন রাসেল উপস্থিত ছিলেন।
শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রামকে বলা হয় আন্দোলন-সংগ্রামের সুতিকাগার। বাংলাদেশের কোন এলাকায় মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা হয়নি। চট্টগ্রাম থেকেই শুরু হয়েছে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা। এ মেলায় মুক্তিযুদ্ধের স্বৃতিচারণ করে মুক্তিযোদ্ধারা নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী অপশক্তিকে ধ্বংস করার শিক্ষা দিয়ে থাকেন। তিনি আরো বলেন, সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্বপ্নগঁাথা বিজয় মেলা পরিষদ ও মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা। এ মেলা অন্যান্য মেলার মত আনন্দের নয়। এ মেলার সাথে জড়িত কাহারও মা, বাবা ও ভাই হারানোর ইতিহাস। আগামী প্রজন্মকে এ ইতিহাসকে ধারণ ও লালন করে দেশের উন্নয়নে কাজ করতে হবে বলে মন্তব্য করেন উপমন্ত্রী।
এ সময় পাকিস্তানের ১৯৫ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচারের দাবি জানান উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধারা।
পরে উপমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের ওয়েব সাইড উদ্বোধন করেন।