ফের ৭.২ ডিগ্রিতে তাপমাত্রা তিনদিন ধরে শৈত্যপ্রবাহ

প্রকাশিত

তেঁতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি-
ফের সর্বনিম্ন ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা নেমে এসেছে উত্তরের শীত। মাঝখানে খানিকটা তাপমাত্রা বাড়লেও অব্যহত ছিল শীতের দাপট। কিন্তু গত তিনদিন ধরে লাগাতার প্রবাহিত শৈত্যপ্রবাহের কারণে শীতের প্রকোপ বাড়লো আগের চেয়ে। সোমবার সন্ধ্যার পর হতে বইতে থাকে প্রচন্ড হিম হাওয়া। সে হিম হাওয়া রূপ নেয় কনকনে ঠান্ডায়। আর তার সাথে মাঘের শীতে বাঘকে ভয় পাওয়ার মতো ঠান্ডায় কাহিল দেশের উত্তরের সীমান্তবর্তী তেঁতুলিয়ার আপামর মানুষ। আজ মঙ্গলবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৭.২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

তেঁতুলিয়ায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, রবিবার থেকে বইছে মৃদু শৈত্য প্রবাহ। কুয়াশা ঢাকা চারদিক। গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিও পড়ছে বিভিন্ন স্থানে। টানা শীতের দাপটে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে এ অঞ্চলের সাধারণ ও খেটে খাওয়া মানুষেরা। শীত ও কুয়াশার কারনে কাজে যেতে পারায় অর্ধ-অনাহারে কাটছে বেকার বসে থাকা মানুষদের। শীত নিবারনে বাড়ির উঠোন কিংবা রান্নাঘরে খড়খুটো জ্বালিয়ে উষ্ণতা নেয়ার চেষ্টা করছে। সোমবার দিনভর উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে ফুটপাতের দোকানগুলোতে শীতের কাপড় নিতে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের ভীড় লক্ষ্য করা যায়। সাধ্যের মধ্যে কিনে নিচ্ছে শীত নিবারনে গরম কাপড়। সন্ধ্যার পর বাজারের বিভিন্ন স্থানে খরকুটো, কাগজের বাক্স জড়ো করে আগুন লাগিয়ে শীত নিবারনের দৃশ্য দেখা যায় বাজারবাসীর।
এদিকে শীতের তীব্রতার কারণে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ কমিউনিটি হাসপাতালে শীতজনিত রোগীর উপস্থিতির ভিড় দেখা গেছে। শীতজনিত রোগে বেশী আক্রান্ত হচ্ছে শিশু ও বয়স্করা।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম জানান,’মঙ্গলবার সকাল ৯টায় তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শৈত্যপ্রবাহের কারণে শীতের তীব্রতা বেড়েছে।