টঙ্গীতে ছাত্রলীগ নেতা বাপ্পির উদ্যোগে নূরুল ইসলাম দিপুর পুত্তলিকাদাহ, প্রতিবাদ সভা বিক্ষোভ মিছিল মহাসড়ক অবরোধ

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান বিশেষ প্রতিনিধি : প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা ভাওয়াল বীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি হত্যা মামলার পলাতক আসামী নূরুল ইসলাম দিপুকে জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব নির্বাচিত করায় গাজীপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি, টঙ্গী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির বাপ্পির উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল, প্রতিবাদ সভা, কলেজ গেইট এলাকায় মহাসড়ক অবরোধ ও নূরুল ইসলাম দিপুর পুত্তলিকাদাহ করা হয়েছে। মিছিলটি টঙ্গীর তিস্তার গেইট এলাকা থেকে শুরু করে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক প্রদক্ষিণ করে কলেজ গেইট এলাকায় এসে শেষ হয়। পরে মহাসড়কে নূরুল ইসলাম দিপুর পুত্তলিকা দাহ করেন। এতে প্রায় ২৫ মিনিট ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে যানজট সৃষ্টি হয়। সাধারণ মানুষ ও পথচারীরা নানাদুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ সময় বক্তব্য রাখেন, ছাত্রলীগ নেতা আক্তার হোসেন, সজিব হাসান জয়, তুহিন সিকদার, মহসিন সিকদার আকাশ, নিরব ইসলাম, মাহমুদুল হাসান চয়ন, রফিকুল ইসলাম রনি, মেহেদী হাসান ইমন, রাফিও, শহীদুল ইসলাম, মো: মাইন, পাভেল মিথুন, জসিম উদ্দিন, শাওন ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফরহাদ হোসেন মোল্লা, সজিব হাসান, মো: হাসান মিয়া প্রমুখ।


বক্তারা বলেন, ২০০৪ সালের ৭ই মে প্রকাশ্যে দিবালোকে শ্রমিক নেতা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারকে দিনদুপুরে গুলি করে হত্যার পর বিদেশে পালিয়ে যান নূরুল ইসলাম দিপু, এ ঘটনায় পরদিন শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ছোট ভাই মতিউর রহমান টঙ্গী থানায় জাতীয় পার্টির ছাত্র সংগঠন জাতীয় ছাত্রসমাজের তৎকালীন কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম দিপুসহ ১৭জনের উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১২জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় ২০১৬ সালের ১৫ জুন উচ্চ আদালতের রায়ে নূরুল ইসলাম দিপুসহ ৬জনকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়। যাবজ্জীবন দেওয়া হয় ৯জনকে।


বক্তারা আরো বলেন, অবিলম্বে ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামী নূরুল ইসলাম দিপুকে দেশে ফিরিয়ে এনে সাজা কার্যকর এবং জাতীয় পার্টি কর্তৃক মনোনীত পদ থেকে অব্যাহতি দেয়ার জোর দাবী জানান। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনি ১৪জনকে যুগ্ম মহাসচিবের নাম ঘোষণা করেছেন। ওই তালিকায় যুগ্ম মহাসচিব পদে ইন্টারপোলের রেড এলার্ট জারি করা ফেরারি আসামী নূরুল ইসলাম দিপুর নাম রয়েছে। নূরুল ইসলাম দিপু হত্যা মামলার ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী হওয়া সত্ত্বেও জাতীয় পার্টি তাকে যুগ্ম মহাসচিব নির্বাচিত করায় গাজীপুরবাসী ক্ষুব্ধ। অনতিবিলম্বে উক্ত পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দিয়ে দ্রুত নূরুল ইসলাম দিপুসহ ঘৃণিত খুনিদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার জোর দাবী জানান। পরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গী কলেজ গেইট এলাকায় নূরুল ইসলাম দিপুর পুত্তলিকা দাহ করা হয়েছে।