টঙ্গীতে স্বামীর নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা

প্রকাশিত

শেখ রাজীব হাসান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ টঙ্গী পশ্চিম থানাধীন খরতৈল পূর্ব পাড়া এলাকায় স্বামী কাম্রুল হাসান রাসেলের (৩৫) নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে আত্মহত্যা করেছে মাহমুদা আক্তার হিরা (২৭) নামে এক গৃহবধূ। কাম্রুল ইসলাম রাসেল নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি থানার সোনাপুর গ্রামের আঃ মান্নান এর ছেলে। গতকাল রবিবার রাত ১১ ঘটিকার সময় হিরার নিজ পিত্রালয়ে আত্মহত্যা করেন। নিহতের পরিবার সুত্রে জানাযায়, গত ছয় বছর আগে মাহমুদা ও কামরুল বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের দুই বছরের মাথায় তাদের ঘরে একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। কাম্রুল দীর্ঘদিন চাকুরীর উদ্দেশ্যে মালয়েশিয়ায় থাকার সুবাধে স্ত্রী মাহমুদা আক্তার হিরা তার নিজ পিত্রালয়ে বসবাস করতেন। গত তিন মাস আগে কামরুল দেশে ফিরেছেন। দেশে ফেরার কয়েকদিন যেতে না যেতে তার আচরণ পাল্টে যায়। শুরু হয় নির্যাতন নিজ পিতার বাড়িতে থেকে স্বামীর বিরুপ আচরণ দেখে সবাই চমকে যায়। এরই ধারাবাহিকতায় গত রবিবার রাতে স্বামী স্ত্রীর মাঝে বেশ ঝগড়া বিবাদের এক পর্যায়ে কামরুল হাসান মাহমুদাকে প্রচন্ড মারধর করে বাড়ি থেকে বের হয়ে চলে যায়। কিছুক্ষণ পর পরিবারের লোকজন মাহামুদাকে ডাক দিয়ে শব্দ না পেয়ে কক্ষে গিয়ে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় খবর দিলে পুলিশ সোমবার সকাল ৭ ঘটিকার সময় খরতৈল পূর্বপাড়া এলাকায় মাহমুদার নিজ বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ বিষয়ে কথা বললে টঙ্গী পশ্চিম থানার এস আই আবদুল মালেক জানান, পরিবারের লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে আমরা লাশ উদ্ধার করেছি। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি তদন্ত মোঃ দেলোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
#